‘বকুল কথা’ ধারাবাহিকের নায়ক ঋষি ওরফে হানি বাফনাকে পেয়ে ফ্যানেরা একেবারে ঘিরে ফেলল!সেখান থেকে বেরিয়ে আসাই মুশকিল হল হানির। ফ্যানেদের অত্যধিক উৎসাহেশেষে বেড়ানোটাই মাটি।

পুজোয় ক’দিন ছুটি পেয়ে মা-বাবাকে নিয়ে তিনি বেড়াতে গিয়েছিলেন মামাবাড়ি মুর্শিদাবাদে।সেখানকার ঐতিহাসিক স্থানগুলি দেখার জন্য লালবাগ ঘুরতে বেরিয়েছিলেন পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে। কিন্তু রোদ চশমা পরে, মুখ ঢেকে কোনও ভাবেই নিজেকে আড়াল করতে পারলেন না ফ্যানেদের কাছ থেকে।পরিবারের সদস্যরা সবাই ঘুরে ঘুরে দেখলেন ঐতিহ্যবাহী স্থানগুলি। কিন্তু ফ্যানেদের হাত থেকে রেহাই পেতে হানি বসে থাকলেন গাড়ির মধ্যেই।

হানি শেয়ার করলেন, “বেড়াতে বেরিয়ে দেখি হাজার হাজার লোক। এত লোক হবে এক্সপেক্ট করিনি। প্রচুর মানুষ ছিল, প্রচুর...। সবাই হলি ডে কাটাতে এসেছে আমাদের মতোই। সেটাই স্বাভাবিক।”

সপরিবারে মুর্শিদাবাদ বেড়াতে গিয়েছেন অভিনেতা 

মুর্শিদাবাদ জেলায় আপনার এত ফ্যান? হানি হাসলেন, “আসলে কলকাতায় সবাই কোনও না কোনও ভাবে, কোথাও না কোথাও আমাদের সরাসরি দেখতে পায়। কিন্তু ওইসব অঞ্চলে তো আমাদের ইন্ডাস্ট্রির মানুষজন খুব একটা যায় না। হঠাৎ চোখের সামনে যদি কোনও অভিনেতাকে দেখে যাকে তারা রোজ টিভির পর্দায় দেখছে, তাহলে তো তারা এক্সাইটেড হবেই।”

আরও পড়ুন-জয়াই ‘বেটার’ হাফ, মেনে নিয়ে টুইটারে মজার পোস্ট অমিতাভের

 

অনেক অভিনেতারই কলকাতা ছেড়ে বেরলেই এমন দশা হয়। নিজস্ব সময়ও ভাগ করে নিতে হয় ফ্যানদের সঙ্গে। তা নিয়ে মোটের ওপর খুশি হলেও আক্ষেপও করেন অনেকেই। হানি কী মনে করেন? তিনি শেয়ার করলেন, “ফ্যানেদের জন্যই বেঁচে আছি। কিন্তু স্ক্রিনের চরিত্র আর অভিনেতার জীবনকে ফ্যানরা এক করে দেখেন। মুর্শিদাবাদ যাওয়ার সময় ট্রেনে একজন জিজ্ঞেস করলেন, ‘বকুল আসেনি?’ তাঁকে বোঝাতে হল, বকুল আমার বাস্তবের স্ত্রী নয়।তাহলেই বুঝুন!”

আরও পড়ুন-করিনা এবং আমি লোকাল ট্রেনেও কলেজে গিয়েছি: করিশ্মা