• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

১০ বছরের চেষ্টা সফল হয়নি, করোনার সুযোগে মিলন দুই পান্ডার

Panda
প্রতীকী চিত্র। টুইটার থেকে নেওয়া ছবি।

চিড়িয়াখানার কর্মীরা ১০ বছর ধরে চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু সফল হননি। শেষে করোনাভাইরাসের প্রকোপ কাছাকাছি এনে দিল দু’টি বড় পান্ডাকে। হংকং-এর ওসেন পার্কের এমনই ঘটনা সামনে এল সম্প্রতি। এখন চিড়িয়াখানার কর্মীরা পান্ডা পরিবারে নতুন সদস্যের আশায় রয়েছেন।

আসলে ইং ইং (স্ত্রী পান্ডা) এবং লে লে (পুরুষ পান্ডা)-কে গত ১০ বছর ধরে এক সঙ্গে রাখা হয়েছে। চিড়িয়াখানার কর্মীরা আশা করছিলেন, তারা পরস্পরের কাছাকাছি আসবে, বংশ বিস্তার হবে। কিন্তু তাদের মধ্যে এমন কিছুই হয়নি এতদিন। কিন্তু এখন সেই আশা দেখা দিয়েছে বলে মনে করছেন তাঁরা।

পান্ডারা সম্ভবত কাছাকাছি আসার জন্য একটু নিরিবিলি পরিবেশ খুঁজছিল, যা এতদিন তারা পায়নি। করোনাভাইরাসের প্রকোপ শুরু হতেই, জানুয়ারির শেষের দিকে পর্যটকদের জন্য এই পার্ক বন্ধ করে দেওয়া হয়। তার কিছু দিন পর থেকেই পার্কের কর্মীরা লক্ষ্য করেন, পান্ডা দু’টির আচার ব্যবহারের কিছু পরিবার্তন এসেছে। দু’টি পান্ডা যখন মিলনের জন্য তৈরি হয় তেমন পরিবর্তন লক্ষ করা গিয়েছিল। নজর রাখা হচ্ছিল তাদের আচরণের উপর।

আরও পডু়ন: সংক্রমণের ভয় নেই, হ্যান্ডওয়াশ, ট্যাপ না ছুঁয়েই ধুয়ে ফেলুন হাত

পান্ডাদের মিলন-ঋতু মার্চ থেকে মে মাসের মধ্যে। সোমবার এই পার্কের তরফে জানানো হয়, তারা মনে করছেন ইং ইং সম্ভবত গর্ভবতী হয়েছে। তবে জুন মাস নাগাদ নিশ্চিত করে বলা যাবে। যদি সত্যিই সে গর্ভবতী হয় তবে তার শরীরে হরমোনের পরিবর্তন ধরা পড়বে সেই সময়। এখন তাঁরা দুজনের উপরেই নজর রাখছেন।

আরও পডু়ন: করোনাকে হারিয়ে বাড়ি ফিরছেন যুবক, ভিডিয়ো শেয়ার করলেন মন্ত্রী

আরও পডু়ন: ঐক্যের বার্তা দিতে গিয়ে নিজের মুখে আগুন লাগিয়ে ফেললেন যুবক!

করোনাভাইরাসের আতঙ্কে কাঁপছে গোটা বিশ্ব। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ মারা যাচ্ছেন। কিন্তু অনেকেই বলছেন, প্রকৃতি নিজেকে সারিয়ে নিচ্ছে এই সময়। ধোঁয়া, দূষণ অনেক কমে গিয়েছে। ডলফিন, মাছ, পশু, পাখিরা নিজেদের মতো করে আবার ঘুরে বেড়াচ্ছে, লোকালয়েও চলে আসছে নিশ্চিন্তে। এবার সেই তালিকায় যোগ হল হংকংয়ের এই দুই পান্ডাও। করোনাভাইরাসই যেন তাদের মিলিত হওয়ার সুযোগ করে দিল।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন