রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদে আমেরিকা এবং ইউরোপীয় সদস্য দেশগুলির একাধিক উদ্যোগ সত্ত্বেও পাকিস্তানে ঘাঁটি গেড়ে থাকা জইশ-ই-মহম্মদ সংগঠনের প্রধান মাসুদ আজহার নিয়ে নিজের অবস্থানেই অনড় থাকার কথা জানাল বেজিং। একই সঙ্গে তাঁরা জানাল, বিভিন্ন পক্ষের সঙ্গে কথা বলার পর পুরো বিষয়টি নিয়ে একটি ‘বোঝাপড়া’-র রাস্তা তৈরি হচ্ছে। এই নিয়ে আমেরিকা যেন অহেতুক চাপ তৈরি না করে— সেই হুঁশিয়ারিও দিল চিনা বিদেশ মন্ত্রক।

ভারতে পুলওয়ামা জঙ্গি হানার দায় স্বীকার করার পরই সারা দুনিয়ার নজর গিয়েছিল কুখ্যাত জঙ্গি সংগঠন জইশ ই মহম্মদের দিকে। এই সংগঠন এবং তার প্রধান মাসুদ আজহারকে একঘরে করতে আসরে নেমেছিল ভারত। ভারতের সেই লড়াইতে পাশেই ছিল আমেরিকা, ব্রিটেন, ফ্রান্সের মতো নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য দেশগুলিও। যদিও মাসুদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়ার বিরুদ্ধ অবস্থান নিয়েছিল পাকিস্তানের অন্যতম বন্ধু দেশ চিন।

আন্তর্জাতিক চাপের মুখেও ফের মাসুদ নিয়ে নিজেদের অনড় অবস্থানের কথাই জানাল বেজিং। বুধবার বিবৃতি দিয়ে চিনা বিদেশ মন্ত্রক জানিয়েছে, ‘‘মাসুদ আজহারকে কালো তালিকাভূক্ত করা নিয়ে আমাদের অবস্থান একই আছে। এই নিয়ে আমরা বিভিন্ন পক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি এবং পুরো বিষয়টি একটি বোঝাপড়ার দিকে এগোচ্ছে। আমরা আমেরিকাকেও জোর করে কোনও প্রস্তাব আনতে বারণ করছি।’’

আরও পড়ুন: ছাত্রদের দিয়ে নিষিদ্ধ মাদক বানাতেন জাপানের অধ্যাপক!

কিছু দিন আগেই বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছিল— আমেরিকা, ইংল্যান্ড এবং ফ্রান্স এক যোগে বার্তা দিয়েছে চিনকে। সেই রিপোর্ট অনুযায়ী ২৩ এপ্রিলের মধ্যে চিনকে নিজের কূটনৈতিক অবস্থান থেকে সরে আসার কথা জানানো হয়েছিল। চিন সরে না এলে মাসুদ আজহারকে কালো তালিকাভূক্ত করতে নিরাপত্তা পরিষদে আলাদা করে প্রস্তাব, আলোচনা এবং ভোটাভুটির ব্যবস্থা করবে আমেরিকা, ফ্রান্স এবং ব্রিটেন, এমনটাও জানা গিয়েছিল সেই রিপোর্ট থেকে। যদিও এই রিপোর্টের কোনও ভিত্তি নেই এবং তাঁদের কাছে কোনও বার্তা আসেনি— বিবৃতি দিয়ে জানাল চিন।

চিনা বিদেশ মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, ‘‘বিভিন্ন আলোচনায় বেশির ভাগ সদস্যরাই জানিয়েছেন, এই বিষয়টিতে ১২৬৭ কমিটির মাধ্যমেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হোক। আমাদের আশা, এই কমিটিকে বাদ দিয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে না।’’

আরও পড়ুন: রক্ষা পেয়েছে ‘যিশুর মুকুট’

মাসুদ আজহারকে বিশ্ব-সন্ত্রাসবাদী ঘোষণা করতে গত ২৭ মার্চ রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদে একটি খসড়া প্রস্তাব এনেছে আমেরিকা। এর আগে ১৩ মার্চ মাসুদকে সন্ত্রাসবাদী ঘোষণা করতে রাষ্ট্রপুঞ্জের ১২৬৭ কমিটিতে আনা একটি আন্তর্জাতিক প্রস্তাব চিনের আপত্তিতে আটকে যাওয়াতেই এই সিদ্ধান্ত নেয় আমেরিকা। আমেরিকার সেই খসড়া প্রস্তাব নিয়েই আশঙ্কা চিনের। যদিও এখনও নিজের পুরনো অবস্থানেই অনড় থাকার কথা জানাল তারা। পাশাপাশি খসড়া প্রস্তাব যাতে চূড়ান্ত না হয়ে ওঠে, আমেরিকাকে সেই বার্তাও দিল তারা।

আল-কায়দা ও তার সহযোগী সংগঠনগুলির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতেই ১৯৯৯ সালে এই ১২৬৭ কমিটি তৈরি করেছিল রাষ্ট্রপুঞ্জ।সাধারণত এই কমিটির সিদ্ধান্তের ভিত্তিতেই আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে থাকে রাষ্ট্রপুঞ্জ।