• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

আমেরিকায় আক্রান্ত বেড়ে ৮৫ হাজার, ছাপিয়ে গেল চিন, ইটালিকেও

USA
লাফিয়ে সংক্রমণ বাড়ছে আমেরিকায়। —ফাইল চিত্র

করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যায় চিন, ইটালি, স্পেনকে টপকে গেল আমেরিকা। এই মুহূর্তে মার্কিন মুলুকে আক্রান্তের সংখ্যা ৮৫ হাজার ছাড়িয়েছে, যা সারা বিশ্বের যে কোনও দেশের চেয়ে বেশি। আক্রান্তের সংখ্যা প্রতি দিন লাফিয়ে বাড়তে থাকায় টান পড়েছে ভেন্টিলেটর, টেস্ট কিট, সুরক্ষা পোশাক, মাস্ক-এর মতো সামগ্রীর। হাসপাতালে স্থান সংকুলান হয়ে পড়েছে। ভেন্টিলেটরের এমনই অভাব দেখা দিয়েছে যে, নিউইয়র্কের একাধিক হাসপাতালে পরীক্ষামূলক ভাবে একটি ভেন্টিলেটর দু’জনকে ভাগ করে দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। তবে ট্রাম্প প্রশাসনের একটাই স্বস্তি, আক্রান্তের তুলনায় মৃত্যুর হার চিন, ইটালি বা স্পেনের চেয়ে এ দেশে কম।

আমেরিকায় এখনও পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১৩০০ জনের। আক্রান্ত ৮৫ হাজার ৫৯৪ জন। চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৮৬৮ জন। চিনে এখন করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বলে দাবি করেছে শি চিনফিং প্রশাসন। সেখানে নতুন করে আর তেমন কেউ আক্রান্ত হচ্ছেন না বলে দাবি করা হয়েছে। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৮১ হাজার ৩৪০। মৃত্যু হয়েছে ৩২৯২ জনের। সুস্থ হয়েছেন ৭৪ হাজার ৫৮৮ জন। ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল চিনের উহান প্রদেশ হিসেবে ধরা হলেও বিশ্বে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে ইটালিতে। সংখ্যা ৮২১৫। আক্রান্ত ৮০ হাজার ৫৮৯ জন। চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১০ হাজার ৩৬১ জন। ইটালির পর ইউরোপে সবচেয়ে বেশি করোনা সংক্রমণ হয়েছে স্পেনে। সেখানে আক্রান্ত ৫৭ হাজার ৭৮৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ৪৩৬৫ জনের। সুস্থ হয়েছেন ৭০১৫ জন।

মৃত্যুর হার বেশি না হলেও যে হারে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ছে, তাতে তীব্র উদ্বেগে মার্কিন প্রশাসন। সবেচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে নিউইয়র্ক ও নিউ অরলিন্সে। এই দুই রাজ্যে হাসপাতালে অনেককে জায়গা দেওয়াও সম্ভব হচ্ছে না বলে ট্রাম্প প্রশাসন সূত্রে খবর। নিউইয়র্কের গভর্নর অ্যান্ড্রু কুওমো সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘‘ভেন্টিলেটরের চাহিদা আকাশচুম্বি। পরিস্থিতি যা, তাতে অবিলম্বে আর ভেন্টিলেটর পাওয়া যাবে না। আমরা অবশ্য হাত গুটিয়ে বসে নেই। আসলে এত ভেন্টিলেটর মজুতই নেই।’’ জানা গিয়েছে, নিউইয়র্কের সিটি হাসপাতাল, প্রেসবিটেরিয়ান, ম্যানহাটানে কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটি মেডিক্যাল সেন্টারে একটি ভেন্টিলেটর দু’জন রোগীকে ভাগাভাগি করে দেওয়া হচ্ছে। রোগীর তুলনায় পর্যাপ্ত ভেন্টিলেটর না থাকাতেই পরীক্ষামূলক ভাবে এই ব্যবস্থা শুরু হয়েছে।”

আরও পড়ুন: এক দিনে মৃত্যু তিন জনের, ‘কমছে সংক্রমণ’

আরও পড়ুন: করোনা মোকাবিলায় ৭৫ বেসিস পয়েন্ট রেপো রেট কমাল আরবিআই

এত দিন পর্যন্ত আমেরিকায় করোনার ভরকেন্দ্র নিউইয়র্ক থাকলেও গত সপ্তাহে বিপুল হারে সংক্রমণ বেড়েছে নিউ অরলিন্সে। এই রাজ্যেই গত সপ্তাহে ‘মার্ডি গ্রাস’ উৎসব হয়েছে। তাতে রাস্তায় বেড়িয়ে একসঙ্গে বহু মানুষ নাচ-গান-খাওয়া দাওয়া করেছেন। সেই উৎসবের জেরেই আক্রান্তদের সংখ্যা এ ভাবে বেড়েছে বলেই মত বিশেষজ্ঞদের। সেখানেও একই ভাবে চিকিৎসা সামগ্রীর সঙ্কট দেখা দিয়েছে। লুইসিয়ানার গভর্নর জন বেল এডওয়ার্ড বলেছেন, এই হারে সংক্রমণ বাড়লে আগামী ২ এপ্রিলের মধ্যে ভেন্টিলেটর শেষ হয়ে যাবে। আর হাসপাতালের বেড শেষ হয়ে যাবে ৭ এপ্রিলের মধ্যে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন