মার্কিন কংগ্রেসের সদস্য হোন বা সদস্যা— প্রত্যেককেই এই দেশকে ভালবাসতে এবং মানতে হবে, বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের কাছে এমনটাই বলতে শোনা গিয়েছে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে। 

গত বুধবার রাতে নর্থ ক্যারোলাইনায় এক সভায় ট্রাম্পের সমর্থকরা হাউসের সদস্যা ইলান ওমরকে ‘ফেরত পাঠাও’ ধ্বনি তুলে স্লোগান দেন। তা নিয়ে গত কাল ট্রাম্পকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেছেন, ‘‘এ ধরনের স্লোগান শুনে আমি মোটেই খুশি নই। সেটা আমি জোরের সঙ্গেই বলছি।’’ উল্লেখ্য, ইলান সেই ‘অ-শ্বেতাঙ্গ’ চার মহিলার মধ্যে এক জন, যাঁরা ‘স্কোয়াড’ নামে জনপ্রিয়। ইলান বাদে বাকি তিন জন হলেন: আলেকজ়ান্দ্রিয়া ওকাসিয়ো কর্তেজ়, রশিদা তালিব এবং আইয়ানা প্রেসলি। তাঁরা ট্রাম্পের বিরোধিতা করে প্রেসিডেন্টের বিরাগভাজন হয়েছেন। এঁদের উদ্দেশেই প্রেসিডেন্ট সম্প্রতি বলেছেন, ‘‘যেখান থেকে এসেছেন, সেখানেই ফিরে যান।’’ ট্রাম্পের এই বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্য নিয়ে তোলপাড় হয়েছে মার্কিন রাজনীতি, তাঁর বিরুদ্ধে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস-এ নিন্দা প্রস্তাবও পাশ হয়েছে। 

এত সমালোচনার মুখে কিছুটা সাবধানী ট্রাম্প তাঁর সমর্থকদের ওই আচরণে আপত্তি জানিয়েছেন। তবে নাম না-করে ইলানদের ফের বার্তাও দিয়েছেন তিনি। ট্রাম্পের মন্তব্য, ‘‘কংগ্রেস সদস্য এবং সদস্যাদের এই দেশকে ভালবাসতে হবে। এটা তাঁদের দায়।’’ কারও নাম উল্লেখ না করে এর পরে প্রেসিডেন্টের সংযোজন, ‘‘ওঁদের এত ঘৃণা। আমাদের দেশ নিয়ে ওঁদের ঘৃণাভরা মন্তব্য করতে দেখেছি। আমার মনে হয় না, সেটা ভাল কাজ। ওঁদের উচিত আমাদের দেশকে গ্রহণ করা, ভালবাসা। তা হলে সব কিছু অনেক উন্নত হবে।’’ প্রেসিডেন্ট বুঝিয়েছেন, তাঁর সমর্থকেরা দেশকে ভালবাসেন। তাঁর কথায়, ‘‘আমি চাই, ওঁরা (সমর্থকরা) দেশকে ভালবেসে যান। আর কংগ্রেস সদস্যারাও আর একটু ইতিবাচক ভাবনাচিন্তা করুন। ওঁদের নানা সমস্যা আছে।’’