প্রধানমন্ত্রী পেড্রো সাঞ্চেজ়ের সমাজবাদীরা স্পেনের জাতীয় নির্বাচনে জয় পেয়েছে 

ঠিকই। কিন্তু সে জয়ের চেয়েও আলোচনায় উঠে এসেছে অতি-দক্ষিণদের উত্থান। ইউরোপীয় ইউনিয়নের পঞ্চম বৃহত্তম দেশটিতে অতি-দক্ষিণ ভক্স পার্টি যে ভাবে চোখে পড়ার মতো উপস্থিতি তৈরি করেছে, তা থেকে অনেকেই মনে করছেন, স্পেনের রাজনৈতিক অচলাবস্থা আরও বাড়বে।

৯৯ শতাংশ আসনে ভোটগণনার পরে পার্লামেন্টে বামপন্থী সমাজবাদীরা জিতেছে ১২০টি আসন। মাত্র সাত মাসে আগের হওয়া ভোটের চেয়ে এ বার তিনটি আসন কমে গিয়েছে তাদের। আর একা সরকার গড়ার মতো অবস্থাতেও নেই। সংখ্যাগরিষ্ঠ সরকার গড়তে হলে ১৭৬ আসনে জয় পেতে হত তাদের। 

৪৩ বছর বয়সি সান্তিয়াগো আবাস্কালের নেতৃত্বে ২৪টি থেকে এক লাফে ৫২টি আসনে পৌঁছে গিয়েছে অতি-দক্ষিণপন্থীরা। বিশেষজ্ঞেরা বলছেন, সরকার গঠনে তাদের গুরুত্ব বাড়বে সন্দেহ নেই। ক্যাটালন বিচ্ছিন্নতাবাদী এবং শরণার্থীদের নিয়ন্ত্রণ করা হবে 

বলে ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে ভক্স পার্টি। আবাস্কালের মতে, তাঁর দলের জয় স্পেনের বড় রাজনৈতিক সাফল্যের উদাহরণ হয়ে রইল। 

তিনি বলেছেন, ‘‘মাত্র ১১ মাস আগে আমরা স্পেনের আঞ্চলিক আইনসভাতেও ছিলাম না। এখন আমরা স্পেনের তৃতীয় বৃহত্তম দল। ভোট এবং আসন দু’টিই বেড়েছে দলের।’’ ইউরোপ জুড়ে শরণার্থী-বিরোধী দক্ষিণপন্থী নেতারা আবাস্কালের জয়ে স্বাগত জানিয়েছেন। ফ্রান্সের মারিন ল্য পেন, ইটালির মাত্তেয়ো সালভিনির মতো অনেকেই আছেন সে তালিকায়। 

দেশে সাত মাসের মধ্যে ফের ভোট হওয়ায় ক্ষুব্ধ পেশায় ওয়েব ডিজ়াইনার বছর ৩৪-এর জুলিয়া জিয়োবেলিনা। তবু ভক্স পার্টির উত্থান রুখতে ভোট দিয়েছিলেন। এখন বলছেন, ‘‘ওরা নয়া ফ্যাসিবাদের মুখ। স্বাস্থ্য এবং অন্যান্য সরকারি পরিষেবা বেসরকারি হাতে চলে যাওয়া রুখতে হবে আমাদের মতো নাগরিকদেরই।’’