ওড়ার কয়েক মিনিটের মধ্যে সমুদ্রে ভেঙে পড়ল ইন্দোনেশিয়ার একটি যাত্রিবাহী বিমান। সোমবার স্থানীয় সময় সকাল ৬টা ২০ মিনিটে জাকার্তা বিমানবন্দর থেকে ১৮৯ জন যাত্রী নিয়ে উড়েছিল লায়ন এয়ারের বিমানটি। গন্তব্যস্থল ছিল সুমাত্রা দ্বীপের পাঙ্গাল পিনাং।

বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ সূত্রে খবর, বিমানটি ওড়ার ঠিক ১৩ মিনিট পরেই এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। নিখোঁজ হওয়ার সময় বিমানটির অবস্থান ছিল পশ্চিম জাভা প্রদেশের কারাওয়াং। বিমানবন্দরের এক আধিকারিক জানান, বিমানটি নিখোঁজ হওয়ার কিছুক্ষণ পরেই খবর আসে সেটি সমুদ্রে ভেঙে পড়েছে।

তল্লাশিতে নামে ইন্দোনেশিয়ান সার্চ অ্যান্ড রেসকিউ এজেন্সি। সংস্থার মুখপাত্র ইউসুফ লতিফ জানান, যেখান থেকে বিমানটি নিখোঁজ হয়ে যায় সেই তাংজুং কারাওয়াঙের কাছেই বিমানটি ভেঙে পড়ে। 

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

সংস্থার প্রধান এম সায়ুগি জানিয়েছেন, সমুদ্রে বিমানের ধ্বংসাবশেষ ভাসতে দেখা গিয়েছে। ঘটনাস্থলে উদ্ধারকারী দল পৌঁছেছে। তবে কত জন যাত্রী বেঁচে আছেন সে বিষয়টি এখনও স্পষ্ট নয়।

আরও পড়ুন: মোদীর ডাকে প্রজাতন্ত্র দিবসে আসতে নারাজ ট্রাম্প!

আরও পড়ুন: এ বার গোমাতাদের কানে ট্যাগ পরাচ্ছে মোদী সরকার

উদ্ধারকাজ চলছে। ছবি: এএফপি।

ইন্দোনেশিয়ার পরিবহণ মন্ত্রকের শীর্ষ কর্তা সিন্দু রায়াহু এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার আগেই মুহূর্তে বিমানটিকে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য বার্তা পাঠিয়েছিলেন পাইলট। তার পরেই খবর আসে বিমানটি মাঝ-সমুদ্রে ভেঙে পড়েছে।

বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ৮ মডেলের এই বিমানটি। ২১০ জন যাত্রী পরিবহণ করতে সক্ষম। মূলত সংক্ষিপ্ত উড়ান পরিষেবার কাজে এই বিমানকে ব্যবহার করা হয়।

 

(সব গুরুত্বপূর্ণআন্তর্জাতিক খবরজানতে চোখ রাখুন আমাদের আন্তর্জাতিক বিভাগে।)