যাদের পর পর তিন বারের বাধায় মাসুদ আজহারের মতো কট্টর জঙ্গিকে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদ 'আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী'র তকমা লাগাতে পারেনি, সেই চিনের হাতে ভারত এ বার সংশ্লিষ্ট যাবতীয় তথ্যপ্রমাণ তুলে দিল। বেজিংয়ের স্বপ্নের প্রকল্প 'বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভ (বিআরআই)' নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্মলনের ঠিক প্রাক-মুহূর্তে।

ভারতের বিদেশ সচিব বিজয় গোখেল সোমবার বলেন, "জইশ-ই-মহম্মদের চালানো সন্ত্রাসের খুঁটিনাটি ও মাসুদ আজহারের বিষয়ে আমরা যা যা জানতে পেরেছি, সেই সব তথ্যই বেজিংকে দিয়েছি।" বিজয় মঙ্গলবার দেখাও করেছেন চিনের বিদেশ সচিবের সঙ্গে। দিল্লিতে বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্রও একই কথা জানিয়ে বলেছেন, "এ বার মাসুদকে আন্তর্জাতিক জঙ্গির তকমা দেওয়া হবে কি না, সে সিদ্ধান্ত নেবে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদের ১২৬৭ নিষেধাজ্ঞা কমিটি। যা নির্ভর করছে নিরাপত্তা পরিষদের সবক'টি দেশের সম্মতির উপর।"

মাসুদকে রাষ্ট্রপুঞ্জের 'আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী' আখ্যা দেওয়ার প্রয়াসে বার বার বাধা দিয়ে বেজিং যে দ্বিপাক্ষিক সমঝোতার শর্তকেই লঙ্ঘন করছে, পরোক্ষে তা মনে করিয়ে দিয়ে চিনের বিদেশসচিবের সঙ্গে এ দিন বৈঠকের শুরুতেই গোখলে  বলেন, "আমরা দু'দেশ পারস্পরিক সহযোগিতায় কাজ করব, যাতে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক মজবুত হয় ও দুই দেশের স্পর্শকাতর বিষয়গুলি গুরুত্ব পায়।"

আরও পড়ুন- মাসুদ নিয়ে ‘বোঝাপড়া’ চলছে, রাষ্ট্রপুঞ্জে প্রস্তাব না আনতে আমেরিকাকে হুঁশিয়ারি চিনের​

আরও পড়ুন- মাসুদ নিয়ে হঠাৎই বাড়তি সক্রিয় দিল্লি​

আগামী ২৫ থেকে ২৭ এপ্রিল, 'বেল্ট অ্যান্ড রোড' ফোরামের আন্তর্জাতিক সম্মেলন হতে চলেছে বেজিংয়ে। সেখানে ৪০ জন রাষ্ট্রপ্রধানের মুখোমুখি হবেন চিনা প্রেসিডেন্ট শি চিনফিং। মাসুদ আজহারকে 'আন্তর্জাতিক জঙ্গি' তকমা দেওয়ার প্রস্তাবে বার বার ভেটো দিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জে বহু দেশের বিরাগভাজন হয়েছে চিন। সেই তালিকায় ভারত তো বটেই, রয়েছে আমেরিকা, ফ্রান্সও। দেশের সবচেয়ে বড় সম্মেলনের আগে তাই মুখরক্ষার দায়টা এখন বেজিংয়েরই!