• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

লম্বা পায়ের জন্য উপযুক্ত পোশাক খুঁজে পাওয়াই দুষ্কর, চেনেন এই মডেলকে?

Model
রেন্টসেনখোরলু বাড। ছবি: টুইটার থেকে নেওয়া।

লম্বা হওয়ার কারণে ছোটবেলায় সমবয়সিদের কাছে কটাক্ষের মুখেও পড়তে হত। আর এখন তাঁকে দেখে অনেকেই জিজ্ঞেস করেন, তিনি মডেল কিনা। বেশ ভালই লাগে এই প্রশ্ন শুনতে। নিজের মুখেই এ কথা জানিয়েছেন, মোঙ্গলিয়ান মডেল রেন্টসেনখোরলু বাড। তিনিই নাকি পৃথিবীর দ্বিতীয় দীর্ঘতম পায়ের মানুষ।

বছর উনত্রিশের রেন্টসেনখোরলুর জন্ম মোঙ্গলিয়ায়। বর্তমানে তিনি আমেরিকার বাসিন্দা। তাঁর উচ্চতা ছ’ ফুট ন’ ইঞ্চি। এই উচ্চতা তিনি তাঁর বাবা মায়ের কাছ থেকে পেয়েছেন। বাবার উচ্চতা ছ’ ফুট ১০ ইঞ্চি আর মায়ের ছ’ ফুট এক।

রেন্টসেনখোরলু জানিয়েছেন, ছোটবেলায় স্কুলে সহপাঠীরা পিছনে লাগত। কিন্তু এখন নিজের উচ্চতা নিয়ে গর্ব করেন। তিনি জানিয়েছেন, তাঁর উচ্চতার জন্যই মডেলিংয়ে সুযোগ পেয়েছেন। এখন এমন একটি ব্র্যান্ডের সঙ্গে তিনি যুক্ত, যারা লম্বা মহিলাদের জন্য লেগিংস তৈরি করে। আর যাঁর কোমর থেকে গোড়ালি পর্যন্ত দৈর্ঘ্য অর্থাৎ পা ৫২.১৮ ইঞ্চি লম্বা, তিনি যে এই ভূমিকায় উপযুক্ত হবেন তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

আরও পড়ুন: কার্গিল যুদ্ধের হিরোকে অভিনব শ্রদ্ধা ইন্ডিয়ান আর্মির

তবে এখনও নিজের জন্য পছন্দসই পোশাক খুঁজতে তাঁকে বেশ কষ্ট করতে হয় বলে জানিয়েছেন রেন্টসেনখোরলু। তাঁর পায়ের মাপের ট্রাউজার্স বা জুতো পেতে প্রচুর খোঁজাখুঁজি করতে হয়। তাঁর জুতোর সাইজ ‘ইউএস ১৩’। এই মাপের জুতো নাকি তিনি এশিয়া এমনকি মোঙ্গলিয়া, কোরিয়াতেও পান না।

আরও পড়ুন: কুকুরের সঙ্গে বিশাল গিরগিটির লড়াই, ফলাফল কী হল দেখুন

তবে রেন্টসেনখোরলুর থেকেও লম্বা পায়ের এক জন রয়েছেন এই পৃথিবীতে। রাশিয়ার একাটেরিনা সিলিনার নাম গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে সব থেকে লম্বা পায়ের জন্য নথিভুক্ত। তবে তাঁর সঙ্গে রেন্টসেনখোরলুর পায়ের দৈর্ঘের খুব বেশি তফাৎ নেই। যদিও রেন্টসেনখোরলু বিশ্বাস করেন, তাঁর পা-ই সব থেকে লম্বা। তবে তিনি গিনেস ওয়ার্ড রেকর্ডে নাম তোলার জন্য উৎসুক নন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন