পাকিস্তানে দুই হিন্দু বোনকে অপহরণ ও পরে ধর্মান্তরিত করিয়ে বিয়ে দেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে টুইট-যুদ্ধ শুরু হল দুই দেশের মধ্যে। ভারতের বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ এবং পাক তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরির টুইট-পাল্টা টুইটে উত্তপ্ত হয়ে উঠল টুইটার।

দুই বোন রবিনা (১৩) ও রিনা-কে (১৫) হোলির দিন ঘোটকি জেলায় তাদের বাড়ি থেকে অপহরণ করে ‘প্রভাবশালী’ ব্যক্তিদের একটি দল। তার পরে একটি ভিডিয়োয় দেখা যায়, মুসলিম মতে রবিনা ও রিনার বিয়ে দিচ্ছেন এক মৌলানা। অন্য একটি ভিডিয়োয় আবার দেখা যায়, স্বেচ্ছায় ইসলাম ধর্মগ্রহণ করার কথা বলছে দু’জন। জোর জবরদস্তি করে তাদের এ সব বলানো হয়েছে বলে পুলিশের কাছে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে এফআইআর করে তাদের ভাই। এই ঘটনায় নিরাপত্তা চেয়ে শনিবার পাকিস্তানের পঞ্জাব প্রদেশের কোর্টে আবেদন জানায় দুই বোন। তারপরই রবিবার এই ঘটনায় এক জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় আরও অনেকে জড়িত, তাদের খোঁজ করছে বলে জানিয়েছে পাক পুলিশ।

শুক্রবার এই ঘটনা সামনে আসার পরই ভারতের বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ ইসলামাবাদে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূতের কাছে পুরো বিষয়ের রিপোর্ট চেয়ে পাঠান। টুইট করেও তিনি সে কথা জানান। তাঁর টুইটের প্রত্যুত্তর দেন পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী ফওয়াদ চৌধুরি। সংখ্যালঘুদের সুরক্ষা নিয়ে রীতিমতো টুইট-যুদ্ধ শুরু হয়ে যায় দু’দেশের দুই মন্ত্রীর মধ্যে।

আরও পড়ুন: ভোটে না দাঁড়াতে বার্তা পাঠানো হয়েছিল মাত্র! মোদী-শাহের উপেক্ষায় ক্ষুব্ধ আডবাণী

আরও পড়ুন: দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

টুইট করেন ফওয়াদ চৌধুরি লেখেন, ‘এটা সম্পূর্ণ পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ সমস্যা। এটা ইমরান খানের নয়া পাকিস্তান, মোদীর ভারত নয় যেখানে সংখ্যালঘুদের দমিয়ে রাখা হবে। ভারতীয় সংখ্যালঘুদের অধিকার রক্ষার ক্ষেত্রেও আপনি একইরকম তৎপর হবেন আশা করব।’ তার টুইটের প্রত্যুত্তরে আবার সুষমা স্বরাজ লেখেন, ‘আমি শুধু রিপোর্ট চেয়েছি। তাতেই ভয় পেয়ে গেলেন! এটাই প্রমাণ করে যে, আপনারা বিবেকের কাছে কতটা অপরাধী।’ এর পর আরও একটি টুইট করে পাক মন্ত্রী। লেখেন, ‘মাননীয় মন্ত্রী ভারতীয় প্রশাসনে এমন মানুষও রয়েছেন যাঁরা অন্য দেশের সংখ্যালঘুদের জন্য সচেতন দেখে ভাল লাগল। আশা করব নিজের দেশের সংখ্যালঘুদের পাশেও আপনারা ঠিক এ ভাবেই দাঁড়ান। গুজরাত এবং জম্মু নিশ্চয়ই আপনাদের আঘাত করে।’

রবিবার পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সিন্ধু এবং পঞ্জাব সরকারকে বিষয়টি খতিয়ে দেখে পদক্ষেপ করার নির্দেশ দেন বলে ফওয়াদ চৌধুরি অন্য আর একটি টুইটে জানিয়েছিলেন। ফওয়াদের টুইট অনুযায়ী, এরকম ঘটনা যাতে আর না ঘটে, সেটাও নিশ্চিত করতে বলেছেন তিনি।