বন্ধ হয়ে যেতে চলেছে প্যারিসের প্রথম ‘ন্যুড’ রেস্তরাঁ ‘ও’ন্যাচারেল’। ফেব্রুয়ারি মাস থেকেই পরিষেবা বন্ধ করবে তারা। অথচ শুরুটা হয়েছিল প্রবল প্রতিশ্রুতি নিয়ে। ক্রমাগত ক্ষতিতে চলতে থাকার কারণেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন এই রেস্তরাঁর মালিকেরা।

২০১৭ সালের নভেম্বরে এই অভিনব রেস্তরাঁর সূত্রপাত করেন ফ্রান্সের যমজ দুই ভাই-বোন মাইক ও স্টেফানে সাডা। মানুষকে ‘ন্যুড’ অবস্থায় খাবার উপভোগ করে দেওয়ার সুযোগ করে দিতেই এই অভিনব উদ্যোগ তাঁরা নিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন। শুরুর দিকে প্রবল জনপ্রিয়তা পেয়েছিল মাইক ও স্টেফানের এই উদ্যোগ। কিন্তু যত দিন যেতে থাকে, ততই কমতে থাকে খরিদ্দারের সংখ্যা। পরিস্থিতি এতটাই খারাপ হয়ে যায় যে শেষে রেস্তরাঁ বন্ধ করে দেওয়ার মতো কঠিন সিদ্ধান্ত হতে বাধ্য হন তাঁরা, এমনটাই জানা গিয়েছে তাঁদের তরফে।

এই রেস্তরাঁ বন্ধ হয়ে যাওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়তেই অনেকেই ব্যক্ত করেছেন এই রেস্তরাঁকে ঘিরে তাঁদের অভিজ্ঞতার কথা। এই রেস্তরাঁর খাবার রীতিমতো উন্নতমানের ছিল বলে জানিয়েছেন অনেকে। এই রেস্তরাঁয় গ্রাহকদের জন্য আলাদা একটি ঘর থাকতো। সেখানে নির্দিষ্ট লকারে নিজেদের জামা-কাপড়ের সঙ্গেই নিজেদের মোবাইল ফোনও রেখে আসতে হতো সকলকে। ছিল না ছবি তোলার অনুমতি। সকল গ্রাহকেই পা’য়ে পরবার জন্য স্লিপার দেওয়া হতো, যদিও মহিলারা ‘হিল’ দেওয়া জুতো পরতে পারতেন।

আরও পড়ুন: বাড়ির বাগানে ৪০টি কুমির!

যদিও এই রেস্তরাঁর ওয়েটাররা খাবার পরিবেশন করতেন পোশাক পরেই। ‘ন্যুড’ রেস্তরাঁয় খাবার পরিবেশনকারীদের পোশাক পরে থাকা পছন্দ করতে পারেননি অনেকেই। বিতর্কও হয়েছিল তা নিয়ে।

আরও পড়ুন: ১২৬ হিরে দিয়ে লিপ-আর্ট, রেকর্ড গড়ে নাম গিনেস বুকের পাতায়

রেস্তরাঁর গ্রাহকদের মতো মালিকেরাও উপুড় করে দিয়েছেন এই রেস্তরাঁ ঘিরে তাঁদের নস্ট্যালজিয়ার কথা। মাইক ও স্টেফানে বলেছেন যে, তাঁরা শুধু ভাল সময়টুকুই মনে ধরে রাখতে চান।