বিস্ফোরণের পর থেকেই নিখোঁজ ছিলেন। সময় যত এগোচ্ছিল, আশঙ্কাটা বাড়ছিল। অবশেষে সেই দুঃসংবাদই দিল ভারতীয় বিদেশমন্ত্রক। শ্রীলঙ্কায় ধারাবাহিক বিস্ফোরণে নিহত হয়েছেন কর্নাটকের দুই জেডিএস কর্মী। এই নিয়ে বিস্ফোরণে নিহত ভারতীয়দের সংখ্যা বেড়ে হল ৬। নিহত দুই কর্মীর পরিবারের পাশে থাকার বার্তা দিয়ে টুইট করেছেন কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী।

রবিবার শ্রীলঙ্কার কলম্বো, নেগেম্বো ও বাত্তিকালোয়া শহরে হোটেল, গির্জা, চিড়িয়াখানা মিলিয়ে মোট আটটি বিস্ফোরণ ঘটে। সেই বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৯০। আহত পাঁচ শতাধিক। তার মধ্যেই রবিবার চার ভারতীয়ের মৃত্যুর খবর আসে। সোমবার সকালে বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ টুইট করে জানান, আরও দুই ভারতীয়ের মৃত্যু হয়েছে।

সুষমা টুইটারে লিখেছেন, কলম্বোর ভারতীয় হাই কমিশন আরও দুই ভারতীয়ের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে। তাঁদের নাম কে জি হনুমানাথারায়্প্পা এবং এম রঙ্গাপ্পা। পরে জানা যায়, ওই দু’জনই কর্নাটকের জেডিএস কর্মী।

আরও পড়ুন: আতঙ্কের মধ্যে আরও বোমা উদ্ধার, শ্রীলঙ্কা জুড়ে হাই অ্যালার্ট, নিহত বেড়ে ২৯০

আরও পড়ুন: হাতে প্লেট, প্রাতরাশে বিস্ফোরণ ঘটাল আত্মঘাতী জঙ্গি

বিস্ফোরণের পরই কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী টুইট করেছিলেন, টুমকুর এবং চিকবালপুর থেকে জেডিএস কর্মীদের ৭ জনের একটি দল কলম্বোর শাংগ্রি-লা হোটেলে ছিলেন। বিস্ফোরণের পর থেকে তাঁরা নিখোঁজ। তাঁদের মধ্যে দু’জনের মৃত্যুর আশঙ্কাও প্রকাশ করেছিলেন কুমারস্বামী। সুষমার টুইটের পর সেই আশঙ্কাই সত্যি হয়।

সুষমা স্বরাজের টুইটের উল্লেখ করে এর পরই কুমারস্বামী টুইটারে লিখেছেন, ‘‘জেডিএস কর্মীদের মৃত্যুর খবরে আমি গভীর ভাবে শোকাহত।ওই দু’জনকে আমি ব্যক্তিগত ভাবে চিনতাম। ওঁদের পরিবারকে গভীর সমবেদনা জানাই। তাঁদের পাশে আছি।’’ প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে, ওই সাত জেডিএস কর্মী শ্রীলঙ্কায় বেড়াতে গিয়েছিলেন।