চিনের বাসিন্দা এলভি। ২৪ বছরের ওই যুবকের ডান কানে বেশ কয়েকদিন ধরেই প্রচণ্ড ব্যথা। সম্প্রতি একদিন রাতে সেই ব্যথা চরমে ওঠে। বিছানায় শুয়ে যন্ত্রণায় ছটফট করছিলেন তিনি। সে সময় তাঁর পরিবারে লোকেরা টর্চ জ্বেলে দেখেন, এলভি-র কানের মধ্যে রয়েছে বড়সড় আরশোলা!

কানের প্রচণ্ড যন্ত্রণা নিয়ে সে সময় তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় হুইজহাউ শহরের সানহে হাসপাতালে। সেখানে তাঁকে পরীক্ষা করেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা। আর তা করতে গিয়েই চমকে যান তাঁরা। তাঁরা দেখলেন, এলভি-র কানের মধ্যে আরশোলার গোটা পরিবার।

সানহে হাসপাতালের চিকিৎসক ঝং ইজিং বলেছেন, ‘‘কানে প্রচণ্ড যন্ত্রণা নিয়ে আমাদের কাছে এসেছিল ও। কানের ভিতর থেকে একটি বড় আরশোলা ছাড়াও ১০টার বেশি বাচ্চা আরশোলা বের করেছি আমরা। কানের ভিতরে ঘুরে বেড়াচ্ছিল সেগুলি।’’ 

এলভির কানের ভিতর আরশোলার পরিবার। ছবি টুইটার থেকে সংগৃহীত। 

তবে আরশোলার পরিবার কতদিন ওই ব্যক্তির কানে বাসা বেঁধেছিল সে ব্যাপারে চিকিৎসকরা কিছু জানাতে পারেনি। কিন্তু কী ভাবে এটা সম্ভব হল? এ ব্যাপারে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমকে ওই চিকিৎসক জানিয়েছেন, ওই ব্যক্তি বিছানার পাশেই খাবারের প্যাকেট রেখে ঘুমোতেন। সেই খাবার খেতে এসেই আরশোলারা ঢুকে থাকতে পারে বলে আশঙ্কা তাঁর।