অনেক আধুনিক শৌচালয় দেখে থাকবেন। তা বলে পাকিস্তানের এক মন্ত্রকে বায়োমেট্রিক সেন্সর লাগানো শৌচালয় তৈরি হবে ভেবেছেন কোনও দিন। এমনটাই করে দেখাল ক্রিকেটার থেকে রাজনীতিবিদ হওয়া ইমরান খানের সরকারের এক মন্ত্রক। সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয়েছে কটাক্ষও।

ইসলামাবাদে শিল্প ও উত্পাদন মন্ত্রকে দেখা গেল এক আধুনিক ‘ভিভিআইপি’শৌচালয়। এই শৌচালয়ে যে কেউ ঢুকতে পারবেন না। যাঁদের আঙুলের ছাপ আগে থেকে বায়োমেট্রিক যন্ত্রে নথিভুক্ত করা থাকবে তাঁরাই ঢুকতে পারবেন। ফলে বোঝাই যাচ্ছে সাধারণ কারও সেখানে প্রবেশাধিকার নেই।

পাকিস্তানের এক সংবাদপত্র সূত্রে জানা গিয়েছে, এই শৌচালয়মন্ত্রকের যুগ্ম সচিব বা তার উপরের স্তরের আধিকারিকরাই ব্যবহার করতে পারবেন। এমনও জানা গিয়েছে, মন্ত্রকের অন্যান্য কর্মীদের জন্য যে শৌচালয় রয়েছে, সেখানে সাবানের মতো সাধারণ প্রয়োজনীয় জিনিসও অনেক সময় থাকে না। সেই জায়গায় ভিভিআইপি শৌচালয় নিয়ে সমালোচনা স্বাভাবিক।

আরও পড়ুন : এক ঝাঁক তিমিকে ঠেলে সমুদ্রে পাঠালেন পর্যটকরা!

আরও পড়ুন : ‘মোটা মহিলারা স্বর্গে যেতে পারবেন না’

 

নির্বাচনের আগে নতুন পাকিস্তান গড়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেনইমরান। তাঁরই মন্ত্রিসভার এক সদস্য যে এভাবে পাকিস্তানকে এগিয়ে নিয়ে যাবেন তা মনে হয় এই প্রজন্ম বুঝতে পারেননি। তাই সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয়েছে বিরূপ মন্তব্য।