তাঁর বোলিং অ্যাকশন নিয়ে বরাবরই বিতর্ক হয়েছে। এবার তামিলনাড়ু লিগে রবিচন্দ্রন অশ্বিনের অদ্ভুত বোলিং অ্যাকশন নিয়ে চর্চা হচ্ছে সর্বত্র।

গত শুক্রবার, ডিন্ডিগুল ড্রাগনসের হয়ে নেমেছিলেন অশ্বিন। প্রতিপক্ষ ছিল চিপক সুপার গিলিজ। শেষ ওভারের চতুর্থ বলে অদ্ভুত ভঙ্গিতে ডেলিভারি করেন এই অফ স্পিনার।

এমন অদ্ভুত বোলিং দেখার পরে নেট দুনিয়ায় প্রবল আলোড়ন তৈরি হয়। অশ্বিনের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে আলোচনা শুরু হয়ে যায়। অবশ্য যাঁর বোলিং নিয়ে এত কথা, সেই অশ্বিন কিন্তু একটি শব্দও খরচ করেননি।

তামিলনাড়ু লিগের আগে কাউন্টি মাতিয়েছেন অশ্বিন। বলের পাশাপাশি ব্যাট হাতেও নিজের দক্ষতা প্রদর্শন করেন। তামিলনাড়ু প্রিমিয়ার লিগে ডিন্ডিগুল ড্রাগনসের হয়ে তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ১৯ বলে ৩৭ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেন অশ্বিন। তাঁর ইনিংসে সাজানো ছিল পাঁচটি চার ও একটি ছয়। দ্রুত বেগে অশ্বিন রান তুললেও তাঁর টিমের ইনিংস শেষ হয়ে যায় ১১৫ রানে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে নিয়মিত উইকেট হারাতে থাকে চিপক সুপার গিলিজ। শেষ ২ বলে জেতার জন্য চিপকের দরকার ছিল ১৭ রান। তখনই অশ্বিন ওরকম অদ্ভুত ভঙ্গিতে বল করেন।

আরও পড়ুন: ওভারথ্রো নিয়ে বিতর্ক, নিয়ম বদলাতে পারে এমসিসি

এর আগেও অশ্বিনকে নিয়ে বিতর্ক হয়েছে। চলতি বছরের আইপিএলে কিংস ইলেভেন পঞ্জাব বনাম রাজস্থান রয়্যালস ম্যাচে রয়্যালসের ব্যাটসম্যান জস বাটলারকে মাঁকড় পদ্ধতিতে আউট করেন অশ্বিন। বাটলারকে আউট করার জন্য নিন্দিত হন অশ্বিন। ইংল্যান্ড ও ওয়েলসে অনুষ্ঠিতবিশ্বকাপেভারতীয় দলে সুযোগ পাননি অশ্বিন। তামিলনাড়ু প্রিমিয়ার লিগে অদ্ভুত ভাবে বল করে ফের খবর হলেন এই অফ স্পিনার।