• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

এই ফিল্ডিংয়ে জেতা যায় না, ক্ষুব্ধ অধিনায়ক

Captain Virat Kohli thinks poor performance is responsible for defeat
ফিল্ডিং নিয়ে সন্দিহান বিরাট কোহলি।

Advertisement

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে হারের কারণ হিসেবে ফিল্ডিংকে দায়ী করলেন বিরাট কোহালি। তিনি নিজে বাউন্ডারি লাইন থেকে দৌড়ে ডান-প্রান্তে ঝাঁপিয়ে শিমরন হেটমায়ারকে তালুবন্দি করলেও বাকিদের হাত থেকে সহজ ক্যাচ পড়েছে। লেন্ডল সিমন্সের অত্যন্ত সহজ ক্যাচ ফেলেছেন ওয়াশিংটন সুন্দর। এভিন লুইসের সহজ ক্যাচ পড়েছে ঋষভ পন্থের হাত থেকে।

কোহালি জানিয়েছেন, একাধিক ক্যাচ ফস্কানোর খেসারতই তার দলকে দিতে হয়েছে। ম্যাচ শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে ভারতীয় অধিনায়ক বললেন, ‘‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ খুব ভাল বল করেছে। ওদের পেসাররা কাটারের খুব ভাল প্রয়োগ করেছে। কিন্তু এ রকম ফিল্ডিং করলে যত বেশি রানই হোক, আটকানো সম্ভব নয়। শেষ দু’টি ম্যাচেই খারাপ ফিল্ডিং হয়েছে। একই ওভারে দু’টি ক্যাচ পড়েছে আমাদের।’’ যোগ করেন, ‘‘ভেবে দেখুন। সেই ওভারে পরপর দু’টি উইকেট চলে গেলে ম্যাচটি কোন জায়গায় দাঁড়াত। পরের ম্যাচ থেকে এ রকম ফিল্ডিং করলে চলবে না। আরও সাহসী হতে হবে প্রত্যেককে।’’

দেখা যাচ্ছে, প্রথমে ব্যাট করলে টি-টোয়েন্টিতে জিততে সমস্যা হচ্ছে ভারতের। কোহালি যদিও এই পরিসংখ্যানে বিশ্বাসী নন। তাঁর কথায়, ‘‘পরিসংখ্যান অনেক কিছু বলে। অনেক অজানা তথ্যও সামনে নিয়ে আসে। ব্যাটিংয়ে প্রথম ১৬ ওভার আমরা খারাপ খেলিনি। কিন্তু শেষ চার ওভারে ৪০-৪৫ রান হবে, এটাই আশা করা হয়। সেখানে আমরা ৩০ রান করেছি।’’

ব্যাট হাতে ১৯ রান করে ফিরে গেলেও, দুরন্ত ক্যাচ নিয়ে মন কাড়লেন বিরাট। কী ভাবে সম্ভব হল সেই ক্যাচ? বিরাটের উত্তর, ‘‘বলটি হাতে জমে গিয়েছে। গত ম্যাচে এ রকমই একটি ক্যাচ হাত থেকে বেরিয়ে গিয়েছিল। কারণ, দু’হাতের পরিবর্তে এক হাতে চেষ্টা করেছিলাম। এ বার 

সেই ভুল করিনি।’’

বিপক্ষ অধিনায়ক কায়রন পোলার্ড আপ্লুত তাঁর দলের পারফরম্যান্সে। আন্দ্রে রাসেল, সুনীল নারাইন, ডোয়েন ব্র্যাভোদের ছাড়াই ভারতের মতো শক্তিশালী দলকে হারিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। পোলার্ড বলছিলেন, ‘‘আমি প্রচুর রান দেওয়ার পরেও ভারতকে ১৭০ রানে আটকে দেওয়া সহজ নয়। বোলাররা অসাধারণ কাজ করেছে। এই দলের সাফল্যে ভীষণ খুশি। ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে ওরা প্রত্যেকে পারফর্ম করছে। সেই ছন্দ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ধরে রাখবে, অনেকেই ভাবেনি।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘এখনও অতিরিক্ত রান দিয়ে ফেলছি। পরের ম্যাচ থেকে ওয়াইড ও নো-বলের সংখ্যা 

কমাতে হবে।’’

ম্যাচের সেরা লেন্ডল সিমন্স জানিয়েছেন, বেশ কিছু দিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বাইরে থাকার কারণে একটু জড়তায় ছিলেন। তিনি বলেছেন, ‘‘চ্যালেঞ্জ হিসেবেই নিয়েছিলাম এই ম্যাচকে। অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে উইকেটের চরিত্র বুঝে শট নিয়েছি।’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন