অতিরিক্ত আবেদন করার জন্য ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালির বিরুদ্ধে আইসিসির লেভেল ওয়ান কোড অফ কন্ডাক্টে শাস্তি ঘোষণা করলেন ম্যাচ রেফারি ক্রিস ব্রড। ম্যাচ ফি-র ২৫ শতাংশ কেটে নেওয়া হল বিরাট কোহালির। দেওয়া হল একটি ডিমেরিট পয়েন্টও।
অতীতেও ম্যাচ রেফারি ক্রিস ব্রডের রোষের মুখে পড়তে হয়েছে ভারতকে। ২০১৭ সালে অস্ট্রেলিয়ার ভারত সফরের দ্বিতীয় ম্যাচে পুণের পিচকে ‘আনপ্রিপেয়ার্ড’ ঘোষণা করেন তিনি। সেই ম্যাচেই তৎকালীন ব্যাগি গ্রিন অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ বিতর্কে জড়ান ড্রেসিং রুমের দিকে তাকিয়ে কিছু ইঙ্গিত করে রিভিউ নেওয়ার জন্য। যদিও তাঁর জন্য কোনও শাস্তি হয়নি তাঁর।
শনিবার আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে বিপাকে পড়ে ভারতীয় ব্যাটিং। মাত্র ২২৪ রানে শেষ হয়ে যায় ভারতের ইনিংস। অল্প রানের পুঁজি চিন্তা বাড়ায় ভারত অধিনায়কের। তাই দ্বিতীয় ইনিংসে একটু বেশি আক্রমণাত্মক দেখাচ্ছিল বিরাটকে। আফগান ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই শামির বল ব্যাটসম্যান জাজাই-এর প্যাডে আছড়ে পড়ে। আবেদন নাকচ করে দেন আম্পায়ার। ভারতীয় দল রিভিউ নিলে দেখা যায়, বলটি লেগ স্টাম্পের সামান্য বাইরে পড়েছে। বলের কিছুটা অংশ লেগ স্টাম্পের বাইরে পড়ায় আবেদন নাকচ করেন তৃতীয় আম্পায়ার। রিভিউ নষ্ট হয় ভারতের। কিন্তু ভারত অধিনায়ককে দেখা যায় রিভিউ নষ্ট হওয়া নিয়ে আম্পায়ারকে উত্তেজিত ভাবে কিছু বলতে। তখনই আশঙ্কা শুরু হয়, ভারতের বিরুদ্ধে খড়্গহস্ত ব্রডের রোষাণলে পড়তে হতে পারে বিরাটকে।

আরও পড়ুন: শেষ ওভারে শামিকে কী পরামর্শ দেন ধোনি? ফাঁস করলেন বাংলার পেসার


তবে শুধুমাত্র ফাইনই নয়, বিরাটকে একটি ডিমেরিট পয়েন্টও দিয়েছেন ব্রড। ২০১৮-এ এর আগে একটি ডিমেরিট পয়েন্ট পেয়েছিলেন কোহালি। এটি নিয়ে দু'টি ডিমেরিট পয়েন্ট হয়ে গেল তাঁরর। ২৪ মাসের মধ্যে আরও দু'টি ডিমেরিট পয়েন্ট যদি যোগ হয়, তবে ম্যাচ থেকে সাসপেন্ডও হতে পারেন তিনি।
তাই আপাতত সতর্ক থাকতে হবে তাঁকে। কারণ কোহালিকে কখনওই হারাতে চাইবে না ভারতীয় দল। আগামী দিনে আগ্রাসনকে আরও অনেক বেশি নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে কোহালিকে। বিশেষ করে ব্রডের ম্যাচ রেফারি থাকা অবস্থায়।

আরও পড়ুন: হ্যাটট্রিক-সহ ৪ উইকেট, তবুও ম্যাচের সেরা নন শামি!