• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

করোনা-টেস্টের নিম্নমানের কিট, অভিযোগ রাজ্যের, দায় বাইপাস করল নাইসেড

corona test
প্রতীকী ছবি।

করোনাকে কেন্দ্র করে কেন্দ্রীয় সংস্থা আইসিএমআর-নাইসেড এবং রাজ্য সরকারের মধ্যে টানাপড়েন চলছিলই। কিট নিয়ে তরজার দ্বিতীয় পর্ব শুরু হয়ে গেল রবিবার। আইসিএমআর-নাইসেডের বিরুদ্ধে টুইট করে নিম্ন মানের কিট সরবরাহের অভিযোগ তুলল রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর।

সম্প্রতি বঙ্গে করোনা সংক্রমণে নমুনা পরীক্ষার হার নিয়ে প্রকাশ্যে মন্তব্য করেছিলেন নাইসেড-প্রধান শান্তা দত্ত। তা নিয়ে কম হইচই হয়নি। তার পরে আরও বেশি নমুনা পরীক্ষা করানোর জন্য রাজ্যের উপরে চাপ বাড়তে শুরু করে। রাজ্য সরকারের বিভিন্ন ল্যাবরেটরিতে নমুনা পরীক্ষার ফল পেতে কেন দেরি হচ্ছে, সেই প্রসঙ্গে আইসিএমআর-নাইসেডকে নিশানা করে এ দিন স্বাস্থ্য দফতরের তরফে পরপর চারটি টুইট করা হয়। প্রথম টুইটে বলা হয়েছে, দু’সপ্তাহ আগে আইসিএমআর-নাইসেড থেকে যে-সব কিট দেওয়া হয়েছে, সেগুলি ব্যবহার করে বিপুল সংখ্যক নমুনার রিপোর্ট অসম্পূর্ণ এসেছে। এই প্রেক্ষিতে পুনরায় পরীক্ষা করে চূড়ান্ত রিপোর্ট পেতে দেরি হয়েছে।

পরের টুইট আরও ধারালো। স্বাস্থ্য দফতরের বক্তব্য, পুণের ‘ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি’ থেকে যখন কিট সরবরাহ করা হত, তখন এই সমস্যা ছিল না। আইসিএমআর-নাইসেডের মাধ্যমে কিট সরবরাহের পর থেকেই সমস্যা তৈরি হয়েছে। রাজ্য সরকার টুইটে জানিয়েছে, শুধু পশ্চিমবঙ্গ নয়, দেশের অন্য টেস্টিং ল্যাবরেটরিগুলিও একই ধরনের সমস্যার শিকার। পরের টুইটে আইসিএমআর-নাইসেডের সরবরাহ করা কিটকে ‘ডিফেক্টিভ কিট’ আখ্যা দিয়ে স্বাস্থ্য দফতর লিখেছে, কলকাতায় বিপুল সংখ্যক নমুনা পুনরায় পরীক্ষা করতে হচ্ছে। যখন মহামারির সঙ্গে মোকাবিলা করতে হচ্ছে, তখন এই পুনঃপরীক্ষায় সময় নষ্ট হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর। তাদের বক্তব্য, অবিলম্বে এই সমস্যার সমাধান করা উচিত আইসিএমআরের।

আরও পড়ুন: চিনের কিট চলে এল, র‌্যাপিড টেস্ট কী জেনে নিন

আরও পড়ুন: অভিনয়ে ভুয়ো খবর প্রচার, গারদে যুবক

স্বাস্থ্য দফতরের টুইট প্রসঙ্গে নাইসেড অধিকর্ত্রী বলেন, ‘‘কিট তো আইসিএমআর দিচ্ছে, আমি তো দিচ্ছি না।’’ এখন যে-কিট দেওয়া হচ্ছে, তাতে সমস্যার কথা স্বীকার করে নিয়ে শান্তাদেবী বলেন, ‘‘আগে সব কিট এনআইভি পুণে স্ট্যান্ডার্ডাইজ় করে পাঠাত। এখন চাহিদা বাড়ায় রেডিমেড কিট পাঠাতে হচ্ছে। বিদেশ থেকে আসছে। চাহিদা মেটাতে একাধিক সংস্থার কাছ থেকে কিট আমদানি করতে হচ্ছে। কোনও কিটের গুণমান খারাপ নয়। আসলে সব কোম্পানির কিট এক হয় না।’’ তিনি জানান, এক-একটি সংস্থার কিট স্ট্যান্ডার্ডাইজ় করার পদ্ধতি আলাদা। স্ট্যান্ডার্ডাইজ় করার পদ্ধতি সোজা নয়। যাদের এ কাজে অভিজ্ঞতা কম, তাদের পক্ষে খুবই অসুবিধার। ‘‘আমাদের সমস্যা হচ্ছে না। আইসিএমআর সমাধানসূত্র খুঁজছে,’’ বলেন শান্তাদেবী।


(অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।)

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন