Advertisement
২৪ জুলাই ২০২৪
Fiber Benefits

কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা কিছুতেই পিছু ছাড়ছে না? ডায়েটে একটি ছোট বদল আনলেই হবে মুশকিল আসান

অন্ত্রের স্বাস্থ্য রক্ষায় ফাইবারের ভূমিকা অনেকখানি। ফল, শাকসব্জি, দানাশস্যে ফাইবার ভরপুর মাত্রায় থাকে। পেট ভরানো ও পেট পরিষ্কার করাই হল ফাইবারের মূল কাজ। শরীরের টক্সিন বার করে দিতেও সাহায্য করে ফাইবার। কেন রোজের ডায়েটে ফাইবার রাখা জরুরি?

Seven important health benefits of fiber.

ওষুধ ছাড়াই কী ভাবে রেহাই পাবেন কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে? ছবি: সংগৃহীত।

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
কলকাতা শেষ আপডেট: ২৫ জানুয়ারি ২০২৪ ১৭:৩৭
Share: Save:

ফিট থাকার জন্য খাবারে সঠিক ভারসাম্য রাখা ভীষণ জরুরি। কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, ফ্যাট জাতীয় খাবার ভারসাম্য রেখে খেলেও অনেকেই ফাইবারকে ততটা গুরুত্ব দেন না। শরীর চাঙ্গা রাখতে কিন্তু রোজের ডায়েটে ফাইবার রাখাও জরুরি। অন্ত্রের স্বাস্থ্যরক্ষায় ফাইবারের ভূমিকা অনেকখানি। ফল, শাকসব্জি, দানাশস্যে ফাইবার ভরপুর মাত্রায় থাকে। পেট ভরানো ও পেট পরিষ্কার করাই হল ফাইবারের মূল কাজ। শরীরের টক্সিন বার করে দিতেও সাহায্য করে ফাইবার।

কেন রোজের ডায়েটে ফাইবার রাখা জরুরি?

১) কোষ্ঠকাঠিন্য, অর্শ, ফিশচুলার মতো সমস্যায় দীর্ঘ দিন ভুগলে ডায়েটে বেশি করে ফাইবার রাখা ভীষণ জরুরি।

২) ফাইবার কোলন পরিষ্কার রাখে। এতে কোলন ক্যানসারের আশঙ্কাও কমে।

৩) বেশি ফাইবার খেলে অনেক ক্ষণ পেট ভরে থাকে। ফলে বাইরের ভাজাভুজি খাওয়ার প্রবণতা কমে। ওজন ঝরানোর জন্য ডায়েট শুরু করলে বোজের খাবারে ফাইবারের পরিমাণ বাড়াতে পারেন।

৪) অন্ত্রে অনেক ভাল ব্যাক্টেরিয়া থাকে, যা স্বাস্থ্যরক্ষায় সহায়ক। এই ব্যাক্টেরিয়াগুলির খাদ্য জোগায় ফাইবার। অন্ত্রে ভাল ব্যাক্টেরিয়ার ভারসাম্য বজায় রাখতেও ফাইবারের ভূমিকা রয়েছে।

৫) ডায়াবিটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতেও ডায়েটে বেশি করে ফাইবার রাখা জরুরি। তাই ডায়েবেটিকদের ডায়েটেও পর্যাপ্ত মাত্রায় ফাইবার রাখার পরামর্শ দেন চিকিৎসকেরা।

Seven important health benefits of fiber.

ডায়াবিটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতেও ডায়েটে বেশি করে ফাইবার রাখা জরুরি। ছবি: সংগৃহীত।

ফাইবার আসলে দু’রকমের হয়— দ্রাব্য এবং অদ্রাব্য। দ্রাব্য ফাইবার জলের সঙ্গে মিশে জেলের মতো তরল তৈরি করে। ওট্স, বার্লি, আপেল, টকজাতীয় ফল, যেমন মুসাম্বি, কমলালেবু, কিউয়ি, ইত্যাদি দ্রাব্য ফাইবারের উৎস। এই প্রকার ফাইবার রক্তে শর্করা ও কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। অন্য দিকে, অদ্রাব্য ফাইবার মূলত পেট পরিষ্কার রাখতে ও হজমে সাহায্য করে। আটা, বাদাম, বীজ, বিভিন্ন ধরনের সব্জি অদ্রাব্য ফাইবারের উৎস। পেটে আলসার থাকলে ডায়েটে ফাইবারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। বেশি ফাইবার খেলে পেটে ব্যথা বা জ্বালা করার মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে। সে ক্ষেত্রে পুষ্টিবিদের সাহায্য নিয়ে দ্রাব্য ফাইবার খেতে হবে, অদ্রাব্য ফাইবারের মাত্রা কমাতে হবে। হঠাৎ করে হাই ফাইবার ডায়েট শুরু করা উচিত নয়। সে ক্ষেত্রে পেটে ব্যথা, গ্যাসের সমস্যা হতে পারে। অল্প অল্প করে ডায়েটে ফাইবারের পরিমাণ বাড়ানোই ভাল।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Fiber Constipation Healthy Tips
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE