• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

১০৩ বছর বয়সে করোনাকে হারিয়ে নার্সিংহোমের বেডেই বিয়ারে চুমুক বৃদ্ধার

Old Lady
জেনি স্টেনা। ছবি: টুইটার থেকে নেওয়া।

গোটা বিশ্ব জুড়েই অনেক বয়স্ক মানুষ করোনা থেকে সেরে উঠছেন। তাঁদের মধ্যে একশো বছর বা তার বেশি বয়সেরও অনেকে আছেন। সেই সব খবর সংবাদমাধ্যম ও সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে সামনে এসেছে। তবে এবার যে বৃদ্ধার কাণ্ড সামনে এল তা মনে হয় আগে শোনা যায়নি। করোনা মুক্ত হয়ে নার্সিংহোমের বেডে শুয়েই সশব্দে খুলে ফেললেন বিয়ারের বোতল।

ম্যাসাচুসেটসের জেনি স্টেনা নামের ১০৩ বছরের এক মহিলা অসুস্থ হয়ে নার্সিং হোমে ভর্তি হন। চিকিৎসকরা যখন জানান তাঁর করোনা পজিটিভের কথা, জেনি কোভিড-১৯ কী তা বুঝতেই পারেননি। তারপর তাঁর চিকিৎসা শুরু হয়।

করোনার সঙ্গে যুদ্ধ করে তিন সপ্তাহেই সুস্থ হয়ে ওঠেন জেনি। জেনি যে নার্সিংহোমে ছিলেন সেখানে আরও ৩৩ জন ভর্তি হন করোনা নিয়ে। তাঁদের চিকিৎসা চলছে। জেনিই প্রথম, যিনি এই নার্সিংহোম থেকে সুস্থ হয়ে ওঠেন, তাও আবার ১০৩ বছর বয়সে।

আরও পড়ুন: লকডাউনের মধ্যে প্রায় এক দশক পরে দেখা দিল এই লুপ্তপ্রায় ‘ভয়ঙ্কর’ চতুষ্পদ

তবে এক সময় জেনির অবস্থার অবনতি হতে শুরু করেছিল। তখন তাঁর পরিবারের সদস্যদের নার্সিংহোমে ডেকে পাঠানো হয়। এমনকি, শেষ বার জেনির সঙ্গে দেখা করার কথাও বলা হয়। কিন্তু পরিবারের সদস্য ও চিকিৎসকদের অবাক করে সুস্থ হয়ে ওঠেন জেনি। ১৩ মে নার্সিংহোমের তরফে ঘোষণা করা হয় জেনি করোনামুক্ত।

আরও পড়ুন: করোনায় মারা গিয়েছেন পালক, ৩ মাস ধরে হাসপাতালে অপেক্ষায় পোষ্য

জেনির সুস্থ হয়ে ওঠার আনন্দ উদযাপন করেন নার্সিংহোমের কর্মীরা। জেনি কী খেতে চান জানতে চাওয়া হলে নার্সিংহোম কর্মীদের জেনি বলেন, তাঁর প্রিয় বিয়ার এনে দিতে। সেই মতো এক বোতল ঠান্ডা বিয়ার এনে দেওয়া হয়। নিজেই সশব্দে সেই বোতল খুলে চুমুক দেন। সেই মুহূর্ত ক্যামেরাবন্দিও হয়। পরে তা বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার হয়। আর এমন এক ছবি ভাইরাল হতেও সময় নেয়নি।

দেখুন সেই পোস্ট:

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন