চোখে পড়ার মতো বা একটু আলাদা কোনও কয়েন বা নোট পেলে আপনিও হয়তো জমিয়ে রাখেন, কিন্তু তা বলে সেই সংগ্রহ ২ হাজারে পৌঁছতে সত্যিই সাধনার প্রয়োজন। আর সেটাই করে দেখিয়েছেন পুরুষোত্তম মুখি।

শুরুটা হয়েছিল ১২ বছর বয়সে, এখন তিনি ৮৫। দুবাইয়ে অনাবাসী ভারতীয় পুরুষোত্তম মুখির সংগ্রহে এখন রয়েছে দু’হাজার রকমের কয়েন। এছাড়াও রয়েছে বিভিন্ন দেশের, বিভিন্ন সময়কার নোট। দুবাইয়ে সুগন্ধি ও কাপড়ের দোকানের মালিক মুখি ৫৫টি দেশ ঘুরেছেন।

১৯৪০ থেকে তিনি ইউরোপিয় বিভিন্ন দেশের কয়েন ওব্রটিশ শাসনকালে ভারতীয় মুদ্রাও সংগ্রহ শুরু করেন পুরুষোত্তম। ১৯৭৮ সালে ভারত থেকে দুবাই চলে যান। সেখানে গিয়েও তাঁর সংগ্রহ বাড়াতে থাকেন।

পুরুষোত্তমের কাছে ১৯৬০ সাল থেকে বাহারিনে ও ১৯০০ গোড়ার দিক থেকে ভারতীয় সব নোট রয়েছে। এমনকি তাঁর কাছে আরব আমির শাহি ও পাকিস্তানের প্রথম দিককার অনেক নোটও রয়েছে।

আরও পড়ুন : মুখ খুলে কয়েন খেয়ে নিচ্ছে ‘অদ্ভুত’, ইন্টারনেটে ভাইরাল টাকার ব্যাগ

আরও পড়ুন : লন্ডনে হবে বিশ্বের প্রথম ‘৩৬০ ডিগ্রি সুইমিং পুল’

আরও পড়ুন : পশু-পাখি ছাড়া থ্রি-ডি হলোগ্রাম সার্কাস দেখে মুগ্ধ দর্শক

যদি ভাল কোনও প্রস্তাব পান, তিনি কি তাঁর সংগ্রহ বিক্রি করবেন? এই প্রশ্নের উত্তরে মুখি বলেন, তিনি একজন ক্রেতা, বিক্রেতা নন। তাই তিনি তাঁর সংগ্রহ কাউকে বিক্রি করতে চান না। তাঁর এই বিপুল সংগ্রহ গড়ে তুলতে কত টাকা খরচ হয়েছে বা এই সংগ্রহের বর্তমান বাজার মূল্য কত, সে প্রসঙ্গে তিনি কিছু জানাতে চাননি।

পুরুষোত্তম জানিয়েছেন, যখনই তিনি কোনও নতুন দেশে গিয়েছেন, সেখানকার বিশেষ মুদ্রা সংগ্রহ করেছেন। তার জন্য তিনি ব্যাঙ্ক, বিদেশি মুদ্রা বিনিময় কেন্দ্র বা অন্য সংগ্রাহকের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। পুরুষোত্তমের সংগ্রহে ৭৮৬ সিরিজের নোট রয়েছে। ৭৮৬ সংখ্যাটি মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের কাছে বিশেষ তাত্পর্যপূর্ণ। সেই সংখ্যার গোটা একটি সিরিজের নোট তিনি কিনে নিয়েছেন।

কী ভাবছেন আজ থেকে শুরু করবেন নাকি নোট, কয়েন সংগ্রহ?