দুই নিরীহ জীবকে মারার জন্য শাস্তি পেলেন এক ব্যক্তি। এমনই একটি ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে দু’টি কুকুরকে মারার জন্য এক ব্যক্তিকে বিপদে পড়তে হল।

টুইটারে ৯ সেপ্টেম্বর একটি ভিডিয়ো পোস্ট হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, দু’টি রাস্তার কুকুর নিজেদের মধ্যে লড়াই করছে। আর কয়েক জন তাদের লড়াই থামানোর চেষ্টা করছেন। কিন্তু কিছুতেই থামানো যাচ্ছে না। এর মধ্যে এক ব্যক্তি কুকুরগুলিকে মারতে আরম্ভ করেন। কুকুরগুলি মার থেকে বাঁচতে সরে যেতে থাকে। ওই ব্যক্তিও তাদের মারার জন্যে এগতে থাকেন সমানে। এরপরই বিপত্তি অপেক্ষা করছিল তাঁর জন্য।

যেখানে এই ‘ত্রিমুখী’ লড়াই চলছিল সেটি একটি খামার এলাকা। মোটা রড বা লোহার পাইপ দিয়ে ট্রাক্টরের সঙ্গে যুক্ত করে আখ মাড়াই কল চলানো হচ্ছিল। দ্রুত গতিতে ঘুরছিল ওই রডটি। এবার কুকুর দু’টি লড়াই করতে করতে তার নীচ দিয়ে গলে চলে যায়। আর ওই ব্যক্তিও তাদের মারতে মারতে এগিয়ে যেতে থাকেন। কিন্তু তিনি ঘুরতে থাকা ওই রডটি খেয়াল করেননি। ফলে প্রথমে তাঁর পোশাক আটকে যায়, আর সেই সঙ্গে তিনিও আটকে গিয়ে ঘুরতে থাকেন বনবন করে। বেশ কিছুক্ষণ এমন চলার পর একজন গিয়ে ট্রাক্টরটি বন্ধ করেন। রক্ষা পান ওই ব্যক্তি।

আরও পড়ুন : রিয়াধের রাস্তায় শরীর-ঢাকা পোশাক ছাড়া মহিলা, হাঁ করে তাকিয়ে দেখলেন মানুষ

আরও পড়ুন : রাগী সিল ধরিয়ে দিল আন্তর্জাতিক মাদক পাচার চক্র

এই ঘটনায় সব থেকে মজার বিষয় হল টুইটারের পোস্টটি। সেখানে লেখা হয়েছে, ‘পাকিস্তানেও কারও একই প্রতিভা রয়েছে’। সঙ্গে ‘ফিট ভারত’টুইটার হ্যান্ডলটি ট্যাগ করা হয়েছে। আসলে এই ফিট ভারত হ্যান্ডলেই সেই ভিডিয়োটি পোস্ট করা হয়েছিল, যেখানে এক কিশোরকে টানা ৩০টি সামারসল্ট দিতে দেখা যায়। কিশোরের ওই শূন্যে ডিগবাজি খাওয়ার ভিডিয়ো ভাইরাল হয়ে যায়। এবার সেই ভিডিয়োর সঙ্গে ব্যাঙ্গাত্মক তুলনা করে পাকিস্তানকে খোঁচা দেওয়া হয়েছে। যদিও কুকুরকে মারতে গিয়ে ‘কর্মফল ভোগ করা’ ব্যক্তি পাকিস্তানের কিনা, নিশ্চিত করে জানা যায়নি।

এই ভিডিয়ো পোস্ট হওয়ার পর শুরু হয়েছে একের পর এক রিটুইট। আর সেখানে নিজেদের প্রতিভা দেখিয়ে নেটিজেনরা কেউ লিখছেন, আমি কাল থেকে হাসছি। কেউ লিখেছেন, ‘এই রকম ভিডিয়োর জন্যই টুইটারটা খুলি।’