ক্রিকেটে বলা হয়, ক্যাচেস উইনস ম্যাচেস। টেস্টে আবার এখন বলা হচ্ছে, টসই ভাগ্য গড়ে দিচ্ছে ম্যাচের। আর এখানেই অনেকটা পিছিয়ে পড়ছে দক্ষিণ আফ্রিকা। ভারতের বিরুদ্ধে চলতি টেস্ট সিরিজের প্রথম দুটোতে হেরে যাওয়ার পর দক্ষিণ আফ্রিকা শিবিরও তাই এখন মনে করছে, টসই তফাত গড়ে দিচ্ছে।

বিশাখাপত্তনম ও পুণে টেস্টে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালি। দুই টেস্টেই প্রথম ইনিংসে  বড় রান তুলেছিল টিম ইন্ডিয়া। বিশাখাপত্তনমে উঠেছিল ৫০২। পুণেয় উঠেছিল ৬০১। ভারতে টেস্টের চতুর্থ বা পঞ্চম দিন ব্যাট করা যে কোনও দলের পক্ষেই কঠিন। দুই টেস্টেই যা করতে হয়েছে প্রোটিয়াদের। যে চাপ নিতে পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা।

মুশকিল হল, শুধু চলতি টেস্ট সিরিজেই টানা টস হারেননি প্রোটিয়া অধিনায়ক ফাফ দু’প্লেসি। এই উপমহাদেশেই পাঁচ দিনের ফরম্যাটে টানা নয় টস হেরেছেন তিনি। টস-ভাগ্য ফেরাতে মরিয়া দু’প্লেসি তাই অন্য ভাবনা ভাবছেন। শোনা যাচ্ছে, নিজে না গিয়ে টস করতে তিনি পাঠাতে পারেন অন্য কাউকে। তেমনই ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন: ফের এক রেকর্ড গড়ার লক্ষ্যে রাঁচীতে নামছেন কোহালি​

আরও পড়ুন: ফ্ল্যাট দখলের অভিযোগ, এ বার প্রতারণার মামলায় নাম জড়াল ক্রিকেটার মনোজ প্রভাকরের

তবে শুধু টস জিতলেই হবে না, ব্যাটসম্যানদের বাড়তি দায়িত্ব নিতে হবে বলেও জানিয়েছেন দু’প্লেসি। তাঁর কথায়, “প্রথম ইনিংসে বড় রান তুলতেই হবে আমাদের। এটা করতে পারলে তারপর যে কোনও কিছু হতে পারে দ্বিতীয় ইনিংসে।” নিজের ব্যাটেও বড় রান চাইছেন তিনি। দুই টেস্টে দুটো পঞ্চাশ করেছেন দু’প্লেসি। সর্বাধিক ৬৪। তাঁর কথায়, “বড় রান না পাওয়ার কোনও কারণ নেই। এটা আমার কাছে চ্যালেঞ্জ। জানি ষাট রান করলে টেস্ট ম্যাচ জেতা যায় না।”

তৃতীয় টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকা পাচ্ছে না ওপেনার এইডেন মার্করাম ও বাঁ-হাতি স্পিনার কেশব মহারাজকে। ফলে প্রথম এগারোয় বদল ঘটছেই। ২-০ এগিয়ে থাকা ভারত অবশ্য কোনও ভাবেই ঢিলে দিচ্ছে না শেষ টেস্টকে। অধিনায়ক বিরাট কোহালি পুণে টেস্ট জিতেই সেই কথা বলেছিলেন। তা ছাড়া বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের বিষয়টাও মাথায় থাকছে। ফলে সিরিজের নিরিখে রাঁচীতে শেষ টেস্ট যতই নিয়মরক্ষার হোক, উত্তেজনা থাকছেই।