একের বেশি পদে থাকতে পারবেন না সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের এথিক্স অফিসার ডিকে জৈন তেমনই নির্দেশ দিয়েছেন। যদিও স্বার্থের সংঘাতের অভিযোগ থেকে প্রাক্তন জাতীয় অধিনায়ককে ‘বেনিফিট অফ ডাউট’ দিয়েছেন তিনি।

এই মুহূর্তে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অফ বেঙ্গলের প্রেসিডেন্ট সৌরভ। তাঁর সঙ্গে আইপিএলে দিল্লি ক্যাপিটালসের সঙ্গেও যুক্ত তিনি। তিনি ফ্র্যাঞ্চাইজির মেন্টর। আবার ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটিতেও ছিলেন তিনি। এই কারণেই তাঁর বিরুদ্ধে স্বার্থের সঙ্ঘাতের অভিযোগ ওঠে। 

সংবাদসংস্থার খবর অনুসারে বোর্ডকে পাঠানো ইমেলে এথিক্স অফিসার লিখেছেন, ‘ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটিতে সৌরভের উপস্থিতি স্বার্থের সঙ্ঘাতের পরিস্থিতি তৈরি করছে। এই অভিযোগে সৌরভের জবাব অবশ্য সঙ্গে সঙ্গে তাঁর পদত্যাগ হিসেবে গণ্য করা যায়। আর ২০১৯ সালের মে মাসেই আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদ হয়েছে সৌরভের। এই পরিস্থিতিতে স্বার্থের সঙ্ঘাতের ব্যাপারটা গুরুত্বপূর্ণ হলেও তা নিয়ন্ত্রণযোগ্য।’

আরও পড়ুন: আমায় ঘৃণা করেন দেশের ক্রিকেট সমর্থকরাই, বলছেন অজি অলরাউন্ডার

তবে সৌরভকে সতর্কও করে দিয়েছেন এথিক্স অফিসার। ইমেলে লিখেছেন, ‘আইন না জানা কোনও অজুহাত হতে পারে না। বোর্ডের ৩৮(২) ধারা অনুসারে সৌরভের এগুলো জানানো উচিত ছিল। কিন্তু ২০১৮ সালের অগস্ট থেকে আইন কার্যকর হয়েছে ধরে নিলে সৌরভকে বেনিফিট অফ ডাউট দেওয়াই যায়। সৌরভ হয়তো বুঝতে পারেননি যে এই তিনটি পদে থাকা স্বার্থের সঙ্ঘাতের মধ্যে পড়ছে। আমি তাই বোর্ডকে নির্দেশ দিচ্ছি তারা যাতে স্বার্থের সঙ্ঘাত ঘটবে এমন বিষয়গুলি থেকে সৌরভের সরে আসা নিশ্চিত করে। এবং বোর্ডের ৩৮(৪) ধারা অনুসারে কোনও নির্দিষ্ট সময়ে একের বেশি পদে যেন সৌরভ না থাকেন।’

আরও পড়ুন: ‘প্রতিভাবান, কিন্তু অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাসই বিপদ পন্থের’ বললেন লান্স ক্লুজনার​