এক চড়েই মৃত্যু! পাওনা টাকা নিয়ে গোলমালের জেরে মহাজনের সঙ্গে বিবাদ। ঝামেলা এমন পর্যায় পৌঁছয় যে, দমদমের বস্ত্র ব্যবসায়ী সমীর সাধুখাঁকে সপাটে চড় মারেন মহাজন লাল্টু পোদ্দার। সংজ্ঞাহীন অবস্থায় নদিয়ার বাসিন্দা সমীরকে আরজিকর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। চিৎপুর থানার পুলিশ ওই মহাজনকে গ্রেফতার করেছে। ধৃতের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধি ৩০৪ ধারায় মামলা রুজু হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর।

পুলিশ সূত্রে খবর, গত শুক্রবার সমীর দমদমে মহাজনের সঙ্গে দেখা করতে যান। ওই দিন রাতে সমীরের বাড়ির লোকজনকে বলা হয়, অসুস্থ হয়ে পড়ায় তাঁকে আরজিকর হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। ফোন পেয়ে হাসপাতালে পৌঁছন সমীরের আত্মীয়রা। কিন্তু সেখানে গিয়ে তাঁরা জানাতে পারেন, সমীর মারা গিয়েছেন। এর পরই ওই মহাজনের বিরুদ্ধে চিৎপুর থানায় অভিযোগ জানান মৃত ব্যবসায়ীর পরিবার। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, টাকাপয়সা নিয়ে সমীরের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন লাল্টু। কথা কাটাকাটির মাঝখানে হঠাৎ সমীরকে চড় মারেন লাল্টু। তাতেই সংজ্ঞা হারান সমীর।

নদিয়ার চাকদহের মদনপুরের বাড়ি সমীরের। মহিলাদের পোষাক তৈরির কারবারের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তিনি। দমদমের বাসিন্দা লাল্টুর থেকে তিনি কাপড় কিনতে আসতেন। দু’জনের মধ্যে ব্যবসায়িক সম্পর্ক দীর্ঘ দিনের। কিন্তু সম্প্রতি টাকা-পয়সা নিয়ে গোলমাল শুরু হয় দু’জনের মধ্যে। শেষ পর্যন্ত এই বিবাদের জেরে মৃত্যু হল ওই ব্যবসায়ীর।

আরও পড়ুন: দেখলাম, কাদায় পড়ে রয়েছে দাদা

আরও পড়ুন: ‘গুমনামি’ নিয়ে সৃজিতদের মুখোমুখি আসরের ভাবনা