ব্রোঞ্জে দিয়ে তৈরি একটি সুদৃশ্য পাত্র। সপ্তদশ শতাব্দীতে তৈরি হয়েছিল চিনে। সুইৎজারল্যান্ডের এক পরিবার চিনে বেড়াতে গিয়ে সংগ্রহ করেছিল সেই পাত্রটি। সেই পাত্র তাঁরা ব্যবহার করতেন টেনিস বল রাখার কাজে। সম্প্রতি এক সুইস নিলাম বিশারদের চোখে পড়ে ব্রোঞ্জের সেই পাত্রটি। তিনি ওই পরিবারকে বোঝান এই পাত্র কেন অমূল্য। তার পরই হংকংয়ে আয়োজিত এক নিলামে প্রদর্শিত হয় সেটি। সেখানে ওই পাত্রটির দাম উঠল ৪৮ মিলিয়ন সুইস ফ্রাঁ। যা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৩৪ কোটি টাকা। 

সুইৎজারল্যান্ডের পরিবারটি ব্রোঞ্জের ওই পাত্রটি ব্যবহার করত টেনিস বল রাখতে। নষ্ট হয়ে যাওয়া টেনিস বল বা যে বল খেলার অযোগ্য হয়ে পড়েছে সেই ধরনের টেনিস বলই তাঁরা রাখতেন ওই বাটিতে। তাদের বিশ্বাস ছিল নষ্ট হয়ে যাওয়া টেনিস বল এই পাত্রে রাখলে শুভ কিছু ঘটবে। সেই জন্য বাড়ির টেবিলেই সেটি সাজিয়ে রাখতেন তাঁরা। তারপরই সেটি চোখে পড়ে এক নিলাম বিশারদের।

তিনি তাঁর সংস্থার তরফে সেই পাত্র নিলামের ব্যবস্থা করেন। তার পরই ৩৪ কোটি টাকা মূল্যে বিক্রি হয় ব্রোঞ্জের তৈরি সেই পাত্র। যদিও এর আগেও পাত্রটিকে নিলামের জন্য চড়িয়েছিল ওই পরিবার। কিন্তু জার্মানির মিউজিয়াম ও লন্ডনের একটি নিলাম সংস্থা ওই পাত্রের ব্যাপারে অতটা উৎসাহী না হয়ে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু কলার অকশন নামের ওই সংস্থা ‘রতন’ চিনতে বাকিদের মতো ভুল করেনি।

 

কলার অকশনের তরফে গ্রিন নামের ব্যক্তি বলেছেন, ‘‘যে সময়ে এটা তৈরি সেই সময়ে পৃথিবীর অন্যান্যজায়গায় ব্রোঞ্জের উপর কাজের নিদর্শন খুব একটা দেখা যায় না। সে জন্যই সেটি এত অমূল্য।’’ 

আরও পড়ুন: সেলিব্রিটিদের বাহুমূলের ব্যাক্টেরিয়া দিয়ে তৈরি হচ্ছে ‘হিউম্যান চিজ’!

আরও পড়ুন: নিজেই ওষুধের দোকানে গিয়ে চিকিত্সা চাইল আহত কুকুর!