• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

চোখের জলে সাক্ষী জর্জের ভাই

George Floyd
ফাইল চিত্র

ভাইয়ের মুখটা যেন শুধু টি-শার্টের ছবি হয়ে থেকে না যায়, এই অন্যায় আর বৈষম্য যেন বন্ধ হয়! অনেক হয়েছে! জর্জ ফ্লয়েড হত্যা মামলায় সাক্ষ্য দিতে এসে বুধবার এই দাবিই তুললেন জর্জের ভাই ফিলোনিজ ফ্লয়েড। 

জর্জ হত্যায় পুলিশের দায় বিচারে মার্কিন কংগ্রেসের বিচারবিভাগীয় হাউস কমিটিতে শুরু হয়েছে সাক্ষ্যগ্রহণ। ফিলোনিজ সেখানে প্রথম এবং প্রধান সাক্ষী। তিনি বলেছেন, ‘‘শ্রেণি, বর্ণ, লিঙ্গ নির্বিশেষে মানুষ পরিবর্তন চাইছেন। সেই স্বরকে শুনুন, তাকে সম্মান করুন।’’

কী ভাবে জর্জ মরতে মরতেও পুলিশ অফিসারকে ‘স্যর’ বলে সম্বোধন করে গিয়েছেন, সে কথা বলতে বলতে কেঁদে ফেলেন ফিলোনিজ। ক্রুদ্ধ স্বরে বলেন, ‘‘২০ ডলারের সিগারেট সরানোর তো অভিযোগ ছিল! মানুষের জীবনের দাম কি এই ২০২০ সালে ২০ ডলার?’’

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অবশ্য আছেন স্বমেজাজেই। দিন কয়েক আগে বাফেলোয় বৃদ্ধ প্রতিবাদীকে পুলিশি নিগ্রহের ঘটনা প্রসঙ্গে তাঁর দাবি, পুরোটাই নাকি ষড়যন্ত্র। ওই বৃদ্ধ নাকি এমন এক ‘ফাসিস্ত-বিরোধী জঙ্গি সংগঠনের’ সদস্য যারা প্রতিবাদীদের মধ্যে ঢুকে ঝামেলা পাকানোর চেষ্টা করছিল। নিজের এই দাবির পিছনে অবশ্য কোনও প্রমাণ দেননি মার্কিন প্রেসিডেন্ট। উল্টে তাঁর বক্তব্য, ‘‘পুলিশ ওই বৃদ্ধকে অত জোরে ধাক্কা দেয়নি, যত জোরে তিনি পড়ে যাওয়ার ভান করেছিলেন।’’ 

এ দিকে, ‘বর্ণবিদ্বেষ’ শব্দের সংজ্ঞা বদল করছে মার্কিন অভিধান ‘মেরিয়াম-ওয়েবস্টার’। এক কৃষ্ণাঙ্গ তরুণী কেনেডি মিচাম সম্প্রতি অভিধান কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছিলেন, শুধু গায়ের রংয়ের জন্য কৃষ্ণাঙ্গদের কতটা নির্যাতিত হতে হয়, অভিধানের সংজ্ঞায় স্পষ্ট বোঝা যায় না। তাই সংজ্ঞা পাল্টানো হোক। ‘মেরিয়াম-ওয়েবস্টার’-এর এডিটোরিয়াল ম্যানেজার পিটার সোকোলোয়োস্কি জানিয়েছেন, তাঁদের অভিধানে ‘বর্ণবিদ্বেষ’ শব্দের তিনটি সংজ্ঞা রয়েছে। মিচামের পরামর্শ মেনেই ‘বর্ণবিদ্বেষ’ শব্দের দ্বিতীয় সংজ্ঞাটি বদল করা হচ্ছে। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন