আন্তর্জাতিক মাদক মাফিয়া জোয়াকিন গুজ়ম্যানকে দোষী সাব্যস্ত করল নিউ ইয়র্কের এক আদালত। মেক্সিকোর নাগরিক গুজ়ম্যানকে এল চ্যাপো নামেই বিশ্ব চেনে। দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলি তো বটেই আমেরিকাতেও ছড়ানো ছিল তাঁর মাদক চক্রের জাল। 

৬১ বছরের এল চ্যাপোর বিরুদ্ধে দশ দফা অভিযোগ আনে মার্কিন পুলিশ। প্রত্যেকটিতেই তাকে গত কাল দোষী সাব্যস্ত করে কোর্ট। বিশ্বের একটা বড় অংশে মাদক চক্র চালানো, পাচার তো বটেই, খুন, ঘুষ নেওয়া, অস্ত্র কারবার, জেল ভাঙার মতো অপরাধও রয়েছে তালিকায়। ২৫ জুন র সাজা ঘোষণা। আদালতের একটি সূত্র জানায়, যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সম্ভাবনাই সব চেয়ে বেশি। 

১৯৯৩ সালে গুয়াতেমালায় প্রথম ধরা পড়েছিলেন এল চ্যাপো। সেখান থেকে তাঁকে মেক্সিকোয় প্রত্যর্পণ করা হয়। তার পর একাধিক বার পুলিশের চোখে ধুলো দিয়ে জেল থেকে পালিয়েছেন এই মাদক মাফিয়া। ২০১৬ সালে শেষ বার ধরা পড়ার পরে আর পালাতে পারেননি। অনেক আইনি জটিলতার পরে তাঁকে আমেরিকায় প্রত্যর্পণ করানো হয়। 

তিন মাসের বিচার প্রক্রিয়ায় ৫৬ জন মাদক মাফিয়ার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিয়েছেন। যাঁদের মধ্যে ১৪ জন ছিলেন তাঁরই এক সময়ের ছায়াসঙ্গী। রায় শোনার পরে এল চ্যাপোর আইনজীবীরা স্বীকার করে নিয়েছেন, তাঁদের মক্কেলের বিরুদ্ধে এত প্রমাণ ছিল যে তাঁদের যুক্তি আদালতে ধোপে টেঁকেনি। কাল রায় ঘোষণার সময়ে আদালত কক্ষে উপস্থিত ছিলেন মাদক মাফিয়ার বর্তমান স্ত্রী। 

সংবাদ সংস্থা