কাশ্মীর ইস্যুকে খুঁচিয়ে তুলে আন্তর্জাতিক মহলকে পাশে পাওয়ার চেষ্টা জারি রেখেছে পাকিস্তান। আগামী সপ্তাহেই বসছে রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ সভা। তাই সেই মঞ্চকেও ব্যবহার করার ‘সুযোগ’ পুরোদমে কাজে লাগাতে চাইছে ইসলামাবাদ। তা নিয়ে এ বার কড়া বার্তা দিল নয়াদিল্লি।

বৃহস্পতিবার, একটি সাংবাদিক বৈঠক করেন রাষ্ট্রপুঞ্জে নিযুক্ত ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি সৈয়দ আকবরউদ্দিন। সেখানে তাঁকে প্রশ্ন করা হয়, কাশ্মীর ইস্যু কি রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ সভায় তুলে আনা উচিত? ওই প্রসঙ্গ উঠে এলে ভারত কী ভাবে তা মোকাবিলা করবে? জবাবে আকবরউদ্দিন বলেন, ‘‘আপনারা আমাকে যা বলছেন, মোটামুটি সেটাই হবে। একটা দেশের পক্ষে তার থেকেও বেশি কিছু হবে। যদি তাই হয়, তা হলে আমাদের দায়িত্ব কী? আমি এই ভাবে বলি, আন্তর্জাতিক মঞ্চে কোনও দেশের দৃষ্টিভঙ্গি কী হবে সেই গতিপথ তারাই স্থির করবে। তাতে কেউ মাথা নিচু করতে পারে। আমাদের দায়িত্ব নিজেদের তুলে ধরা। তারা মাথা নিচু করতে পারে, কিন্তু, আমরা নিজেদের তুলে ধরব।’’ নিজের বক্তব্যে কোথাও অবশ্য পাকিস্তানের নাম করেননি আকবরউদ্দিন।

এখানেই থামেননি আকবরউদ্দিন। তিনি আরও বলেন, ‘‘ নিজেদের তুলে ধরার ব্যাপারে আমরা আত্মবিশ্বাসী। আমরা যে মাথা নিচু করব না সে উদাহরণ আমরা আপনাদের আগেও দিয়েছি। ওরা যখন নীচে নামবে আমরা তখন মাথা উঁচু করেই থাকব।’’

আরও পড়ুন: গ্রেফতারি এড়াতে আগাম জামিনের আবেদন রাজীবের, নোটিস পেল সিবিআই

কী ভাবে নিজেদের তুলে ধরবে ভারত? সেই প্রশ্নের জবাবে ভারতের সঙ্গে বিভিন্ন দেশের কূটনৈতিক সম্পর্কের কথা তুলে ধরেন আকবরউদ্দিন। বলেন, ‘‘তারা কী করতে চায় এটা তাদের ব্যাপার। আমরা মূলধারার সন্ত্রাসবাদ দেখেছি। এবং এখন আপনারা এখন বলছেন, তারা বিদ্বেষমূলক বিবৃতি দিতে পারে। এটা তাদের কৌশল। বিষাক্ত কলম দিয়ে বেশি দিন লেখা যায় না।’’

আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে বসছে রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ সভা। ওই দিনই বক্তৃতা দেওয়ার কথা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। একই সঙ্গে ওই দিনই বক্তৃতা দেবেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানও। ওই মঞ্চে কাশ্মীর ইস্যু যে তোলা হবেই তা আগেই স্পষ্ট করে দিয়েছেন পাক বিদেশ মন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি। বৃহস্পতিবার, ভারতও ফের এক বার তাদের অবস্থান স্পষ্ট করে দিল।

আরও পড়ুন: আইন পড়ুয়া তরুণীকে ধর্ষণে অভিযুক্ত প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্বামী চিন্ময়ানন্দ গ্রেফতার