এক বাচ্চা মেয়ের বুদ্ধিতে প্রাণে বেঁচে গেল তার পাঁচ বছর বয়সী ভাই। না হলে গলায় দড়ির ফাঁস লেগে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারত। সম্প্রতি এমনই একটি ভিডিয়ো সামনে এসেছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে লিফ্টের মধ্যে একটি দড়ি গলায় ফাঁসের মতো আটকে যায় শিশুটির। দ্রুত বুদ্ধি খাটিয়ে তাকে উদ্ধার করে দিদি।

পিপলস ডেইলি চায়নার ভেরিফায়েড টুইটার হ্যান্ডলে একটি ৪০ সেকেন্ডের ভিডিয়ো আপলোড করা হয়েছে। ভিডিয়োটি একটি লিফ্টের ভেতর লাগানো সিসি ক্যামেরার ফুটেজ। সেখানে দেখা যাচ্ছে প্রথমে একটি বাচ্চা মেয়ে লিফ্টে ঢুকে হাত দিয়ে দরজা বন্ধ হওয়া থেকে আটকাচ্ছে। তার পিছনে আরও দুই বাচ্চা ঢোকে। নির্দিষ্ট তলায় নামার জন্য বোতাম টেপে একজন। এরপরই হঠাত্ দেখা যায় বাচ্চা ছেলেটি গলায় দড়ির ফাঁস লেগে ঝুলে যায়। বাচ্চা মেয়েটি দ্রুত দৌড়ে এসে ছেলেটিকে তুলে ধরে যাতে গলায় চাপ না পড়ে। তারপর হাতে করে ফাঁসটা কোনও রকমে খুলে দেয়। ফাঁস লেগে যাওয়ার সময় বাচ্চা ছেলেটিকে ছটপট করতে দেখা যায়।

প্রথমে দেখে বোঝা যাবে না, কী ভাবে গলায় ফাঁস লাগল ছেলেটির। ভাল করে লক্ষ্য করলে বোঝা যাবে, লিফ্টে ঢোকার সময় ছেলেটির হাতে একটি দড়ি ছিল। সম্ভত সে সেটি নিয়ে খেলছিল। সেটাই হাতে নিয়ে লিফ্টে ঢোকে। কিন্তু পুরো দ়ড়িটা লিফ্টের মধ্যে আসেনি। কিছুটা অংশ দরজার বাইরে রয়ে যায়। ফলে বোতাম টেপার পর দরজা বন্ধ হয়ে লিফ্ট যখন নামতে শুরু করে, দড়ির বাইরের অংশ লিফ্টের বাইরের দরজায় আটকে যায়। আর দড়িটা সম্ভবত ছেলেটির মুখে ছিল। তাই লিফ্ট নামতে শুরু করার সঙ্গে সঙ্গে আটকে থাকা দ়ড়িটি উপরে উঠতে থাকে, গলায় ফাঁস হয়ে আটকে যায়।

আরও পড়ুন : ভিডিয়ো গেমের মতো চালানো যাবে ইজরায়েলের স্বয়ংক্রিয় এই ট্যাঙ্ক

আরও পড়ুন : এবার ইলন মাস্কের ‘মস্করার পাত্রী’ হলেন ইংল্যান্ডের রানি!

১ আগস্ট পোস্ট হওয়া ভিডিয়োটি ইতিমধ্যেই প্রায় ৩৫ হাজার বার দেখা হয়েছে।