চোট পেয়ে দলের বাইরে চলে যাওয়ার আগে যেখানে শেষ করেছিলেন স্টিভ স্মিথ, ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ঠিক যেন সেখান থেকেই শুরু করলেন তিনি। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে চতুর্থ টেস্টের প্রথম দিনের শেষে অস্ট্রেলিয়ার রান তিন উইকেটে ১৭০। স্মিথ অপরাজিত ৬০ রানে। হেডিংলে টেস্টে ভাল খেলে আসা মার্নাস লাবুশানে করেন ৬৮। বৃষ্টির জন্য প্রথম দিন খেলা হতে পারল মাত্র ৪৪ ওভার। জোফ্রা আর্চার ১০ ওভার বল করে ২৮ রান দিয়ে কোনও  উইকেট পাননি। দুটো উইকেট পেয়েছেন স্টুয়ার্ট ব্রড। 

স্মিথের এই সিরিজে দুটি সেঞ্চুরি হয়ে গিয়েছে। কিন্তু চলতি অ্যাশেজ যেন ক্রমশ দুঃস্বপ্ন হয়ে উঠছে ডেভিড ওয়ার্নারের কাছে। ব্রডের বিরুদ্ধে ক্রমাগত ব্যর্থ হচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ার এই বাঁ হাতি ওপেনার। এ দিনও ব্রডের ইনসুইংয়ে (ওয়ার্নারের আউটসুইং) ব্যাট ছুঁইয়ে ফিরে গেলেন ওয়ার্নার। দু’বলের বেশি স্থায়ী হয়নি তাঁর ইনিংস। চলতি অ্যাশেজের সাত ইনিংসে এক বার মাত্র দু’অঙ্কের রান করতে পেরেছেন তিনি। পাঁচ বার ওয়ার্নারের উইকেট নিয়েছেন ব্রড।

প্রথম টেস্টে জোড়া সেঞ্চুরির পরে লর্ডসে আর্চারের বলে মাথায় আঘাত পেয়েছিলেন স্মিথ। দ্বিতীয় ইনিংসে আর ব্যাট করতে পারেননি। তাঁর জায়গায় ‘কংকাশন সাব’ হিসেবে নেমেছিলেন লাবুশানে। হেডিংলেতেও খেলতে পারেননি স্মিথ। কিন্তু ম্যাঞ্চেস্টারে ফিরে এসে দেখিয়ে দিলেন, বাইরে থাকলেও কিছু মাত্র ছন্দপতন হয়নি তাঁর। অস্ট্রেলিয়া এই টেস্টে উসমান খোয়াজাকে বাইরে রেখে খেলতে নেমেছে। ফিরিয়ে আনা হয়েছে অভিজ্ঞ মিচেল স্টার্ককে।

এ দিন অস্ট্রেলিয়ার টিম হোটেলের বাইরে এক অভিনব বিলবোর্ড দেখা গিয়েছে। হেডিংলেতে ম্যাচ জেতানোর পরে স্টোকসের দু’হাত ছড়িয়ে হুঙ্কার  দেওয়ার যে ছবি ছড়িয়ে পড়েছিল, সেই ছবিই দেখা গিয়েছে ওই বিলবোর্ডে। যেখানে আরও লেখা ছিল, ‘‘ম্যাঞ্চেস্টারে স্বাগত।’’

 

স্কোরকার্ড
অস্ট্রেলিয়া    ১৭০-৩ (৪৪)

অস্ট্রেলিয়া (প্রথম ইনিংস)
হ্যারিস এলবিডব্লিউ বো ব্রড           ১৩ • ২৪
ওয়ার্নার ক বেয়ারস্টো বো ব্রড            ০ • ২
লাবুশানে বো ওভার্টন                  ৬৭ • ১২৮
স্মিথ ন. আ.                                    ৬০ • ৯৩
হেড ন. আ.                                     ১৮ • ১৭
অতিরিক্ত                                            ১২
মোট                                          ১৭০-৩ (৪৪)
পতন: ১-১ (ওয়ার্নার, ০.৪), ২-২০ (হ্যারিস, ৬.৬)  ৩-১৪৪ (লাবুশানে, ৩৯.২)।
বোলিং: স্টুয়ার্ট ব্রড ১০-২-৩৫-২, জোফ্রা আর্চার ১০-০-২৮-০, বেন স্টোকস ৮-০-৩৬-০, জ্যাক লিচ ৬-২-১৮-০, ক্রেগ ওভার্টন ১০-০-৪১-১।