• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

গতির মহারণ দেখার অপেক্ষা ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে

Ben
নজরে: তরুণ পাক পেসার নাসিম শাহকে নিয়ে আগ্রহ। ডান দিকে, মহড়াতেই তৈরি হয় মঞ্চের সাফল্য। মঙ্গলবার বেন স্টোকসের ক্যাচ প্র্যাক্টিস সেটাই বলছে। গেটি ইমেজেস

বয়স ১৭ বছর। বুধবার থেকে শুরু হওয়া টেস্ট সিরিজে ইংল্যান্ডের তারকা ব্যাটসম্যান বেন স্টোকস, জো রুটদের সামলানোর দায়িত্ব তাঁর উপরে। তবে এত বড় পরীক্ষার মুখে পড়লেও ঘাবড়াচ্ছেন না তিনি— পাকিস্তানের পেসার নাসিম শাহ। বরং তিনি যে কোনও পরিস্থিতির জন্য তৈরি। 

ইংল্যান্ডের প্রচারমাধ্যমে নাসিম বলেছেন, ‘‘জো রুট এবং বেন স্টোকসকে আমি ক্রিকেটার হিসেবে খুব উঁচু জায়গায় রাখি। ওদের বিরুদ্ধে আমার বোলিং পরীক্ষা করার সুযোগ পাব ভেবে দারুণ লাগছে। তবে আমি কিন্তু ওদের কাউকে ভয় পাই না। আমি সম্মান করি ভাল ক্রিকেটারদের। কিন্তু কাউকে আমার উপরে দাপট দেখাতে দেব না।’’ এই টেস্ট সিরিজ থেকে তাঁর প্রত্যাশা কী, জানতে চাইলে নাসিম বলেছেন,  ‘‘আমি চাই এই সিরিজের পরে বিপক্ষের ব্যাটসম্যান আর সমর্থকেরা যেন আমার বোলিং মনে রাখতে পারেন। এই মুহূর্তে অনেকেই আমায় চেনেন না। আশা করছি এই সিরিজের শেষে অনেকেই আমায় চিনে যাবেন।’’

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিজ্ঞতা বাড়াতে শুধু নিজের দলের কোচ এবং সতীর্থদের থেকেই শেখার উপরে জোর দিচ্ছেন না নাসিম। তিনি বলেন, ‘‘নিজের দলের কোচ এবং সতীর্থদের থেকে শিক্ষাটা খুব জরুরি। একই সঙ্গে আমার মনে হয় বিপক্ষ দলের বোলারদের থেকেও শেখাটা একই রকম গুরুত্বপূর্ণ।’’ সঙ্গে তিনি আরও যোগ করেছেন, ‘‘আমি ইংল্যান্ডের বোলারদের উপর নজর রাখব। দেখব ঘরের মাঠে ওরা কী ভাবে বোলিং করে। জেমস অ্যান্ডারসনের আমি ভক্ত। দীর্ঘ দিন ধরে ধারাবাহিক ভাবে নিজের জায়গাটা ধরে রেখেছেন জেমস। ওঁর বোলিং দেখে শেখার সুযোগটা কাজে লাগাতে চাই।’’

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্টে জেতার সুযোগ তৈরি করতে গেলে পাকিস্তানকে প্রথম থেকেই মরিয়া হয়ে ঝাঁপাতে হবে। মাঠে নামার আগে দলকে সতর্ক করে দিয়েছেন পাকিস্তানের কোচ মিসবা উল হক।  শেষ টেস্ট খেলার ছ’মাস পরে জৈব সুরক্ষিত পরিবেশে  বুধবার থেকে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে নামছে পাকিস্তান। আজহার আলি-বাবর আ‌জ়মদের আরও বড় পরীক্ষা হল, ইংল্যান্ড শুধু ঘরের মাঠেই খেলছে না, কয়েক দিন আগেই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে টেস্ট সিরিজে ২-১ হারিয়েছে জো রুটের দল। সেটা মাথায় রয়েছে মিসবার। তাই তিনি বলছেন, ‘‘আমরা জানি ইংল্যান্ড কিছুটা হলেও এই সিরিজে এগিয়ে থেকে নামছে। কিন্তু যদি সতর্ক থাকি এবং প্রথম টেস্টেই নিজের সেরাটা দিতে পারি, তা হলেই জেতার সুযোগ রয়েছে। না হলে সমস্যায় পড়ে যেতে হবে আমাদের।’’

অনেকে মনে করছেন, ওয়েস্ট ইন্ডিজের থেকে পাকিস্তান আরও কড়া চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে পারে জোফ্রা আর্চারদের এই সিরিজে। বিশেষ করে দলে অধিনায়ক আজহার আলি, বাবর আজম, আসাদ শফিক এবং আবিদ আলির মতো ব্যাটসম্যান থাকায়। বোলিং বিভাগে নাসিম এবং শাহিন আফ্রিদিও যে কোনও ব্যাটিংকে ধাক্কা দিতে পারেন। গতির মহারণ দেখার অপেক্ষাতেও সবাই। পাকিস্তানের নাসিমের পাশাপাশি তেমনই ইংল্যান্ডের জোফ্রার দিকেও তাই নজর রয়েছে।

ইংল্যান্ডের অধিনায়ক রুট প্রাক ম্যাচ সাংবাদিক বৈঠকে বলেছেন, ‘‘পাকিস্তান খুব ভাল দল। ওদের প্রধান শক্তি হল বোলিং। তবে আমরা ওদের চ্যালেঞ্জ নেওয়ার জন্য তৈরি।’’ রুটের মতে, তাঁরা কিছুটা সুবিধাজনক জায়গায় রয়েছেন এই সিরিজ শুরু হওয়ার আগে তিনটে টেস্ট খেলে নেওয়ায়। পাকিস্তান যে সুযোগ পায়নি। তা ছাড়া পরিচিত পরিবেশে খেলার সুবিধেও তাঁরা পাবেন। 

পাকিস্তানের অধিনায়ক আজহার আলি ইংল্যান্ডে পৌঁছনোর পরে প্রস্তুতির দিক থেকে সন্তুষ্ট। তবে তিনি এটাও জানেন, তিনটি টেস্ট ম্যাচ খেলে নামার সুবিধে রয়েছে ইংল্যান্ডের। তরুণ পেসার নাসিমের উপরেও ভরসা রয়েছে তাঁর। তিনি বলেন, ‘‘নাসিমের অভিজ্ঞতা কম। কিন্তু ও যে কোনও ব্যাটিংকে বিপদে ফেলে দিতে পারে। আশা করছি, ও এই সিরিজে সফল হবে।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন