রাজ্যের সরকারি চিকিৎসায় দীর্ঘ অচলাবস্থার পর জট খোলার সম্ভাবনা দেখা দিল। আন্দোলনরত জুনিয়র ডাক্তাররা মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের স্থান নিয়ে নমনীয়তা দেখানোর পর, নবান্নের তরফেও দ্রুত আলোচনায় বসার উদ্যোগ শুরু হল। নবান্ন সূত্রে খবর, সোমবার বিকেল ৩টেয় ডাক্তারদের নবান্নে ডেকেছেন মুখ্যমন্ত্রী।    

শনিবার রাতেই সাংবাদিক বৈঠক করে আন্দোলনরত জুনিয়র ডাক্তারদের কাজে ফিরতে আহ্বান জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু আন্দোলনকারীদের তরফে রাতেই তা পত্রপাঠ খারিজ করে দেওয়া হয়েছিল। কাল পর্যন্ত জুনিয়র ডাক্তারদের দাবি ছিল, এনআরএস-এ এসেই মুখ্যমন্ত্রীকে বৈঠক করতে হবে। তবে রবিবার জেনারেল বডির বৈঠকে শুরু থেকেই আন্দোলনকারীদের একটা বড় অংশের সুরই এই অনড় অবস্থানের বিপক্ষে যেতে শুরু করে।

শেষ পর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রীর পছন্দ মতো জায়গাতেই বৈঠক করতে রাজি হন আন্দোলনকারীরা। তবে শর্ত দেওয়া হয়, সমস্ত মেডিক্যাল কলেজ থেকে পাঁচ জন করে প্রতিনিধি নিয়ে, সংবাদমাধ্যমের উপস্থিতিতে বৈঠক করতে হবে। কবে, কখন বৈঠক হবে, সেই সিদ্ধান্তের ভারও ছেড়ে দেওয়া হয় মুখ্যমন্ত্রীর উপরেই। নবান্ন সূত্রের খবর, বিষয়টি ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রীকে জানানো হয়েছে। সমস্ত মেডিক্যাল কলেজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে রাজি হয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রী স্থান বাছুন, কিন্তু বৈঠক হোক মিডিয়ার সামনে, দাবি জুনিয়র ডাক্তারদের

এ দিন বিকেলেই ছাত্রদের সিদ্ধান্তের কথা স্বাস্থ্য-শিক্ষা অধিকর্তা প্রদীপ মিত্র মারফত পৌঁছে যায় স্বাস্থ্যসচিব রাজীব সিংহের কাছে। মুখ্যমন্ত্রীর কানেও তা পৌঁছয়। তবে নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, পূর্ব নির্ধারিত কাজ নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই আজ বৈঠকের সম্ভাবনা কম। সে ক্ষেত্রে আগামিকাল সোমবার বৈঠক হতে পারে। সূত্রের খবর, স্বাস্থ্য দফতর প্রস্তাব দিয়েছে নবান্নের অডিটোরিয়ামে এই বৈঠক করতে। প্রত্যেক মেডিক্যাল  কলেজ থেকে পাঁচ জন করে প্রতিনিধিকে বৈঠকে রাখার প্রস্তাব দিয়েছিলেন আন্দোলনকারীরা। কিন্তু প্রত্যেক কলেজ থেকে দু’জনের বেশি প্রতিনিধিকে জায়গা দেওয়ার অসুবিধা বলে জানায় স্বাস্থ্য দফতর।  জুনিয়র ডাক্তাররা তাতেও রাজি হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। সে ক্ষেত্রে রাজ্যের ১৪টি মেডিক্যাল কলেজ থেকে মোট ২৮ জন বৈঠকে যোগ দিতে পারেন।                                                                            

আরও পড়ুন: তোলা’ না দেওয়ায় তাণ্ডব, রাতের অন্ধকারে গড়িয়ায় ভাঙচুর ৩২টি বাস

নবান্ন সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, স্বাস্থ্য দফতরের দেওয়া প্রস্তাব আন্দোলনকারী জুনিয়র ডাক্তারদের বড় অংশই মেনে নিয়েছে। নবান্নের সভাঘরে বৈঠক নিয়ে কোনও আপত্তি নেই তাঁদের। তবে স্বাস্থ্য দফতর এটাও স্পষ্ট করে দিয়েছে যে, আন্দোলনকারীদের দাবি মেনে সংবাদমাধ্যমকে বৈঠকে উপস্থিত রাখা সম্ভব নয়। বরং বৈঠক শেষ হলে দু’পক্ষ তাদের মুখোমুখি হবে। বৈঠকে সংবাদমাধ্যমকে না রাখার বিরোধিতা করে এখনও পর্যন্ত কোনও মন্তব্য করেননি আন্দোলনকারীরা। তাই আগামিকাল নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকেই অচলাবস্থা কাটিয়ে বেরনোর রফাসূত্র মিলবে বলে আশাবাদী স্বাস্থ্যকর্তারা।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।