ভুবনেশ্বরগামী একটি বাসে চোরাই সোনা নিয়ে যাওয়ার সময় শুল্ক দফতরের জালে পড়ল এক যাত্রী। ধৃতের নাম গোরাচাঁদ হাঁড়া। ঘাটাল থেকে কটক-ভুবনেশ্বরগামী বাসে উঠেছিলেন দাসপুরের বাসিন্দা গোরাচাঁদ। বাজারের ব্যাগে করে প্রায় দু’কেজি সোনা নিয়ে যাচ্ছিল সে।

শুল্ক দফতরের অফিসাররা সূত্রে মারফত খবর পান, ওই বাসে এক যাত্রী চোরাই সোনা নিয়ে যাচ্ছেন। সঙ্গে সঙ্গে ভুবনেশ্বরগামী বাসটির পিছু নেন অফিসাররা। ঘাটালের পর বাসটিকে আটক করা হয়। শুরু হয় তল্লাশি। প্রায় দু’কেজি সোনা সহ গোরাচাঁদকে গ্রেফতার করা হয়। ওই চক্রে আরও কেউ জড়িত রয়েছে বলে সন্দেহ শুল্ক অফিসারদের। ধৃতকে জেরা করে আরও তথ্য পাওয়ার চেষ্টা চলছে।

শুল্ক দফতর সূত্রে খবর, প্রায় ৭৬ লক্ষ টাকা মূল্যের সোনা গোরাচাঁদের কাছ থেকে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। গোরাচাঁদের কাছে কী ভাবে ওই সোনা এল? কাকে ওই সোনা দিতে যাচ্ছিল সে? গোটাটাই খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অফিসারদের প্রাথমিক অনুমান, বাংলাদেশ থেকে চোরা পথে ওই সোনা কলকাতায় আনা হয়েছিল। সম্ভবত, ভুবনেশ্বরের কোনও ব্যবসায়ীকে তা দিতে যাচ্ছিল গোরাচাঁদ।

আরও পড়ুন: স্ত্রীর সামনে স্বামীকে টেনে নিয়ে গেল বাঘ

মাতৃত্বকালীন ছুটি নেই, চাকরি ছাড়ছেন রোগী সহায়কেরা