তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে শিক্ষাগত যোগ্যতা সংক্রান্ত ভুল তথ্য দেওয়ার অভিযোগ পেয়ে তাঁকে হাজিরার নির্দেশ দিল দিল্লির একটি আদালত। দিল্লির অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সমর বিশাল আজ নির্দেশ দিয়েছেন, ২৫ জুলাই অভিষেককে আদালতে হাজির হতে হবে।

ডায়মন্ড হারবারের সাংসদের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সার্থক চতুর্বেদী অভিযোগ দায়ের করে বলেছিলেন, অভিষেক ২০১৪-র লোকসভা ভোটে মনোনয়ন পেশের সময় হলফনামায় জানিয়েছিলেন, তিনি আইআইপিএম নামক বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে ২০০৯-এ এমবিএ ডিগ্রি পেয়েছেন। কিন্তু ওই প্রতিষ্ঠানই দিল্লি হাইকোর্টে জানিয়েছে, তারা কোনও ডিগ্রি দেয় না। এই ভুল তথ্য দিয়ে অভিষেক জনপ্রতিনিধিত্ব আইন ভেঙেছেন বলে সার্থকের অভিযোগ। সার্থকের বক্তব্য, অভিষেক ভোটারদের সঙ্গে প্রতারণা করেছেন। আজ অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট বলেছেন, ‘‘অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করার যথেষ্ট কারণ রয়েছে। তাই তাঁকে জনপ্রতিনিধিত্ব আইনের ১২৫এ ধারা ভাঙার অভিযোগে সমন করা হচ্ছে।’’

এ ব্যাপারে তৃণমূল শীর্ষ সূত্রের বক্তব্য, আদালত এক পক্ষের বক্তব্য শুনেই অভিষেককে হাজিরা হওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। পরবর্তী শুনানির দিন অভিষেকের তরফে তাঁর বক্তব্য তুলে ধরা হবে। তৃণমূল সূত্রের যুক্তি, ওই বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সংক্রান্ত দিল্লি আদালতের রায় বেরিয়েছিল ২০১৪-য়। অভিষেক ২০০৯-এ ডিগ্রি পেয়েছেন। এ ক্ষেত্রে আদালতের রায় প্রযোজ্য নয়। ২০১৯-এর লোকসভা ভোটের হলফনামাতেও অভিষেক তাঁর এমবিএ ডিগ্রির কথা জানিয়েছেন। কিন্তু সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে, ওই বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রাপ্ত স্বীকৃতি অনুযায়ী বেলজিয়ামের একটি সংস্থা ডিগ্রি দিয়েছে।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও।সাবস্ক্রাইব করুনআমাদেরYouTube Channel - এ।