তৃণমূল-বিজেপির সংঘর্ষের মাঝে পড়ে গুলিবিদ্ধ হল ৩ বছরের শিশুকন্যা। সোমবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুরের খেজুরিতে।

বাড়ির সামনে খেলছিল বছর তিনেকের ঋত্বিকা দলুই। খেলতে খেলতে হঠাত্ই মাটিতে লুটিয়ে পড়ে সে। তাকে মাটিতে পড়ে যেতে দেখেই ছুটে আসেন তার বাবা মন্টু দলুই। কী হয়েছে তা দেখার জন্য মেয়েকে টেনে তুলতেই আঁতকে ওঠেন তিনি। ঋত্বিকার পিঠের ডান দিক থেকে অঝোরে রক্ত বেরোচ্ছিল। মন্টু বলেন, “হঠাত্ করেই দেখি মেয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে কাঁদছে। তুলতে গিয়ে দেখি পিঠ থেকে রক্ত ঝরছে। সঙ্গে সঙ্গে মেয়েকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাই।” ঋত্বিকার পিঠের ডান দিক থেকে একটা গুলির টুকরো বার করা হয়েছে বলে দাবি মন্টুর। এলাকায় এক জন বিজেপি কর্মী হিসেবে পরিচিত তিনি।

লোকসভা নির্বাচনের ফল বেরনোর পর থেকেই দফায় দফায় তৃণমূল ও বিজেপির কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে খেজুরির বিভিন্ন প্রান্তে। তারই জেরে সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা নাগাদ ফের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে খেজুরি ২ ব্লকের হলুদবাড়ির ১ নং অঞ্চলের দেখালি গ্রামে। গ্রামবাসীদের দাবি, হাঠত্ই এলাকায় ব্যাপক বোমাবাজি শুরু হয়। সঙ্গে গুলির আওয়াজও শুনতে পান তাঁরা। দেখা যায়, এক দল সশস্ত্র দুষ্কৃতী গ্রামে ঢুকে তাণ্ডব চালাচ্ছে। সে সময় দুষ্কৃতীদের ছোড়া গুলি এসে লাগে ঋত্বিকার পিঠে। গ্রামবাসীরাই পুলিশে খবর দেন। কিন্তু পুলিশ আসার আগেই দুষ্কৃতীরা সেখান থেকে চম্পট দেয়।  

আরও পড়ুন: ভর সন্ধ্যায় টলি অভিনেত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ বিজয়গড়ের রাস্তায়

আরও পড়ুন: স্ত্রীকে ছ’টুকরো করে খুনে স্বামী-সহ তিন জনের ফাঁসি

খেজুরি ২ উত্তর মণ্ডলের বিজেপির যুব সভাপতি রণজিত্ মণ্ডলের অভিযোগ, গত কাল সন্ধ্যা থেকেই এলাকায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। তারাই এলাকায় বোমা-গুলি ছুড়ছিল। সেই গুলি ছিটকে মেয়েটির গায়ে লাগে। তাঁর আরও অভিযোগ, দিনের পর দিন দুষ্কৃতীরা তাণ্ডব চালিয়ে বেড়াচ্ছে। পুলিশকে এ বিষয়ে বার বার জানানো হলেও কোনও ব্যবস্থাই নিচ্ছে না। যদিও বিজেপির তোলা এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল। তাদের পাল্টা দাবি,  এটা বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। নিজেদের মধ্যে মারামারি করেই এমন ঘটনা ঘটিয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, তারা চিকিত্সকের সঙ্গে কথা বলেছেন। মেয়েটির পিঠ থেকে ছররা গুলির মতো ধাতব পদার্থ পাওয়া গিয়েছে বলে চিকিত্সক জানিয়েছেন।  সোমবার রাতের এই ঘটনার সঙ্গে কারা জড়িত ছিল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অভিযুক্তদের খোঁজ চালানো হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় একটা চাপা উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। কোনও রকম অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে তার জন্য বাড়ানো হয়েছে পুলিশের টাহলদারি।