পাকিস্তানের করাচিতে সে দেশের বায়ুসেনার জাদুঘরে অভিনন্দন বর্তমানের মূর্তি, সঙ্গে রাখা রয়েছে একটি কফি মগ। এমনই একটি ছবি পোস্ট করেছেন সে দেশের এক সাংবাদিক। তার টুইটারটি ভারতীয় নেটিজেনদের চোখে পড়তেই চোখা চোখা প্রতিআক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছে পাক সাংবাদিককে। উঠে এসেছে ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ যুদ্ধের সময় পাকিস্তানের আত্মসমর্পণের প্রসঙ্গও।

আনোয়ার লোধি নামে ওই পাক সাংবাদিক ৯ অক্টোবর পোস্টটি করেন। সেখানে দেখা যাচ্ছে, ভারতীয় বায়ুসেনার পোশাকে রয়েছেন অভিনন্দন বর্তমান। তাঁর পিছনে পাক সেনার পোশাকে আরও একটি মূর্তি। পাশে রাখা রয়েছে একটি কফি মগ। পিছনে দেওয়ালে ঝুলছে ভারতীয় বায়ুসেনার একটিপোশাক। সম্ভবত সেটি অভিনন্দন বর্তমানের।

নেটিজেনরা মনে করছেন, পাকিস্তান বিষয়টিকে এমনভাবে দেখাতে চাইছে, যেন কত সহজে এক ভারতীয় সেনাকে বন্দি হতে হয়েছে পাক সেনার হাতে।

আরও পড়ুন: পুরুষ সেজে কিশোরীদের সঙ্গে ‘সম্পর্ক’, জানতে পেরে আত্মঘাতী অভিযুক্তের স্বামী

ভারতীয়দের কাছে অভিনন্দন বর্তমান এখন ‘ওয়ার হিরো’। যিনি বালাকোটে মিগ ২১ বাইসন নিয়ে পাক বায়ুসেনার একটি এফ ১৬ বিমানকে গুলি করে নামান। তবে তাড়া করতে গিয়ে পাকিস্তানের গুলি লাগে তাঁর বিমানেও। তিনি সফল ভাবে বিমান থেকে বেরিয়ে গেলেও, পাক সেনাদের হাতে ধরা পড়েন। তবে চাপের মুখেও শত্রু শিবিরে কোনও তথ্য দেননি তিনি। পরে পাল্টা চাপের মুখে তাঁকে ছেড়ে দিতে বাধ্যহয় পাকিস্তান।

আরও পড়ুন: বিএমডাব্লিউ-র দামে বিক্রি হল একটি মাত্র কাঁকড়া!

চাপের মুখে পড়ে অভিনন্দন বর্তমানকে ছেড়ে দিতে হলেও এক ভারতীয় বায়ুসেনা অফিসারকে ধরতে পারা বিশাল সাফল্য হিসেবে দেখাতে চায় পাক সেনা। তাই তারা মিউজিয়ামে এমন মূর্তি বসিয়েছে বলে মনে করছে নেটিজেনরা। তবে ভারতীয়রা তাদের মনে করিয়ে দিয়েছেন, কী ভাবে বাংলাদেশের মুক্তি যুদ্ধের সময় ভারতীয় সেনার কাছে আত্মসমর্পণ করতে হয় ৯৩ হাজার পাক সেনাকে। খুঁচিয়ে তুলেছেন পাকিস্তানের সেই ব্যথা।

দেখুন আনোয়ার লোধির টুইট ও তাতে ভারতীয়দের কমেন্ট: