নাম মিরান্ডা হলিংশিড। ২৭ বছরের এই যুবতী থাকেন আমেরিকার টেক্সাসে। গত শুক্রবার পরিবারের সঙ্গে তিনি বেরিয়েছিলেন ঘুরতে। গিয়েছিলেন আরকানসাস ক্রেটার অব ডায়মন্ডস স্টেট পার্কে। সেখানে ঘুরতে ঘুরতে তিনি খুঁজে পেয়েছেন প্রায় চার ক্যারাটের একটি হিরের টুকরো। এই ঘটনার কথা সহ খুঁজে পাওয়া সেই হিরের ছবি নিজেদের ওয়েবসাইটে জানিয়েছে আরকানসাস স্টেট পার্ক কর্তৃপক্ষ। তার পরই বিষয়টি নিয়ে শুরু হয়েছে আলোচনা।

এই হিরের খণ্ডটি খুঁজে পাওয়ার আগে ওই পার্কে আধ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে হিরের খোঁজ করছিলেন মিরান্ডা। কিন্তু কিছুই খুঁজে পাননি। তার পর ছায়ায় বসে ইউটিউবে তিনি দেখছিলেন কী ভাবে হিরে খুঁজে পাওয়া যায় এই এলাকায়। আর তা দেখতে দেখতেই হুট করে তাঁর চোখ চলে যায় পাশে। তখনই তিনি উজ্জ্বল একটি কিছু পাথরের খাঁজে দেখতে পান। সেই উজ্জ্বল খণ্ডটিই ছিল ৩.৭২ ক্যারাটের হলুদ রঙের হিরে।

 দেশের এক সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুসারে, গত শতাব্দিতে এই পার্ক থেকে কয়েক হাডার ছোট ছোট হিরের টুকরো পাওয়া গিয়েছিল। ২০১৩-র পর এই পার্কে পাওয়া এটিই সবথেকে বড় হিরের টুকরো। মিরান্ডা জানিয়েছেন, এই হিরের টুকরোটি তিনি বিক্রি করবেন না। বদলে এটি দিয়ে একটি আংটি বানিয়ে পরবেন হাতে। 

আরও পড়ুন: দু’মুখো মাছ দেখে কী বলল নেটদুনিয়া?

আরও পড়ুন: রাস্তার উপর বাচ্চা ও পুলিশের নাচে মোহিত নেটদুনিয়া! দেখুন ভিডিয়ো 

আরকানসাস স্টেট পার্কে পাওয়া ৩.৭২ ক্যারেটের সেই হিরের টুকরো। ছবি: আরকানসাস পার্কের ওয়েবসাইট থেকে সংগৃহীত।